9.25.2014

অবিলম্বে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন বাতিল করতে হবে।

অবিলম্বে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন বাতিল করতে হবে ৯৭ ভাগ মুসলিম অধ্যূষিত দেশে কুফরী আইন বরদাশত করা হবে নাঃ মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘তিনি অতীতের পবিত্র ওহী মুবারক দ্বারা নাযিলকৃত সম্মানিত দ্বীন এবং অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ অর্থাৎ সর্বকালের সমস্ত মানবরচিত মতবাদ রদ করে অর্থাৎ বাতিল ঘোষণা করে, মহাসম্মানিত সত্যদ্বীন ও মহাসম্মানিত হিদায়েত দিয়ে উনার মহাসম্মানিত রসূল ও হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে পাঠিয়েছেনএ বিষয় সাক্ষী হিসেবে মহান আল্লাহ পাক তিনিই যথেষ্ট

অবিলম্বে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন বাতিল করতে হবে।
অবিলম্বে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন বাতিল করতে হবে। 
কাজেই পৃথিবীর কোনো সরকার, তা রাজতান্ত্রিক হোক অথবা সমাজতান্ত্রিক বা গণতান্ত্রিকই হোক অথবা নাস্তিক্যবাদী হোক অথবা অন্য কোনো মতবাদই হোক না কেন- তাদের কাউকে কোনো ক্ষমতা দেয়া হয় নাই যে, তারা সম্মানিত শরীয়ত উনার উপর হস্তক্ষেপ করেঅতএব, বাংলাদেশ সরকারের জন্যও জায়িয হবে না, মহাসম্মানিত সুন্নত অর্থাৎ বাল্যবিবাহের ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করা
স্মরণীয় যে, অতীতে যারা মহান আল্লাহ পাক উনার বিরোধিতা করেছে তারা কিন্তু ধ্বংস হয়ে গিয়েছে, বর্তমানে যারা বিরোধিতা করছে তারাও কিন্তু ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এবং ভবিষ্যতে যারা বিরোধিতা করবে তারাও কিন্তু ধ্বংস হয়ে যাবেমহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘এদের জন্য কঠিন আযাব রয়েছে এবং এরা কোনো সাহায্যকারী পাবে না

মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাপবিত্র শান মুবারক উনার বিরোধিতা করেই ব্রিটিশরা ১৯২৯ সালে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন প্রবর্তন করেছিলোতাতে ইসলামবিদ্বেষী যালিম ব্রিটিশ বেনিয়াদের প্রণীত আইনে শাস্তির মেয়াদ ১ মাসের কারাদ- এবং ১ হাজার টাকা জরিমানার বিধান ছিলোআর বর্তমান বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রিপরিষদ গত ১৫-০৯-২০১৪ ঈসায়ী তারিখে আরো জঘন্যভাবে ইসলামবিরোধী অর্থাৎ পবিত্র ও মহাসম্মানিত কুরআন শরীফ এবং পবিত্র ও মহাসম্মানিত সুন্নাহ শরীফ উনাদের বিরোধী কথিত বাল্যবিবাহ আইন ২০১৪’-এর খসড়াটি নীতিগতভাবে পাস করেছেনাউযুবিল্লাহ!

যা প্রকৃতপক্ষে মহান আল্লাহ পাক উনার, উনার রসূল নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরই বিরুদ্ধে আইন প্রণয়ন; যা কাট্টা কুফরীনাউযুবিল্লাহ! অতএব, বাংলাদেশ সরকাররের জন্য ফরয হচ্ছে- অতিসত্বর বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনপ্রত্যাহার করা এবং বাল্যবিবাহকে খাছ সুন্নত হিসেবে মেনে নয়া

 ব্রিটিশরা অর্থাৎ কাফির-মুশরিক, ইহুদী-নাছারা, নাস্তিক তথা সমস্ত বিধর্মীরা যেহেতু মুসলমান ও সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার শত্রু; তাই তারা বিদ্বেষবশতঃ মুসলমান উনাদের পবিত্র ঈমান, আক্বীদা ও আমলের ক্ষতি করার লক্ষ্যে আইনগুলো করেছেনাউযুবিল্লাহ!


অতএব, ৯৭ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত ও রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম উনার দেশে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনসহ পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের বিরোধী অর্থাৎ মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের বিরোধী যত প্রকার আইন রয়েছে, তা ব্রিটিশদের দ্বারা প্রণিত হোক অথবা অন্য কারো দ্বারা প্রণিত হোক, সে সমস্ত আইন অবিলম্বে বাতিল করতে হবে

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ পোষ্ট টা পড়ে যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্স এ আপনার মতামত জানাবেন আর আপনার বন্ধু বান্দব দের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন্নাআসসালামু আলাইকুমফি আমানিল্লাহ !!! আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সঠিক বুজ দান করুন।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: