9.25.2014

যে বিষয়টি আপনার নামাজ/ইবাদত কে নষ্ট করে দিচ্ছে - বিস্তারিত পড়ুন।

আপনি আমি সবাই ইবাদত করছি কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা আমাদের সেই ইবাদত আমাদেরই সামান্য ভুলে নেকির বদলে গুনার পাহাড় বানাচ্ছে আমাদের জন্যে তাই আসেন জেনে নেই কি সেই যিনিস না আমাদের ইবাদত কে নষ্ট করে দিচ্ছে। ইবাদত কে যে জিনিষ নষ্ট করে তার নাম হলো রিয়া আর রিয়া সম্পর্কে কিছু হাদিস শরিফ নিচে বর্ণনা করলাম।

১. আপনি ছালাত পড়ছেন এমতাবস্থায় ভাবছেন, কেউ হয়তো আপনাকে খেয়াল করছেতাই আপনি আপনার ছালাতকে আরো চমৎকার ভাবে আদায় করতে থাকলেন যেন আপনার ছালাত উক্ত লোকের নযর কেড়ে নেয়, যদি এমন ধারণা পোষণ করে থাকেন, তবে আপনি রিয়া করলেন {ইবনু মাজাহ, হা/৪২৭৯ ; আহমাদ, ৩/৩০; ইবনু খুযাইমাহহা/ ৯৩৭}

২. রিয়া-এর অর্থঃলোকের প্রশংসা কুড়ানোর জন্য কোন ইবাদাত করা{ফাতহুল মাজীদ, পৃঃ- ৫৩০}

৪. রিয়া তথা লোক দেখানো ইবাদাত করা ছোট শির্ক যা কবীরা গুণাহর চাইতেও ভয়ংকর

৫. রিয়াকে গুপ্ত শির্ক বলা হয়েছে যা মাসীহ দাজ্জালের চাইতেও মারাত্মক{ইবনু মাজাহ, হা/ ৫২০৪}

৬. সুমআহ-এর  অর্থঃ-- সুনাম যদি আপনি সুন্দর কিরাত, ওয়াজ করেন, এবং লোকেরা আপনার প্রশংসা করে, তবে তা রিয়া নয় কেননা, আপনার নিয়াত হলো আল্লহকে খুশী করা যদি আপনি খালেছ নিয়াতে দাওয়া দেন, ওয়াজ করেন, বই লিখেন -- এতে যদি আপনার সুনাম ছড়িয়ে পড়ে তবে তা শির্ক নয় বরং এটা মহান রবের পক্ষ হতে পুরষ্কার
স্বরূপ এ বিষয়ে নীচের হাদীছটি পড়ুন।

যে বিষয়টি আপনার নামাজ/ইবাদত কে নষ্ট করে দিচ্ছে - বিস্তারিত পড়ুন।
নামাজ / ইবাদত।
নূরে মুজাসসাম রাহমাতাল্লিল আলামিন সায়্যিদুল কাওনাইন শাফিউল মুজনবিন হাবিবুল্লাহ হুজুরে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উনাকে বলা হলো, আপনি এ বিষয়ে কি বলেন? জনৈক ব্যাক্তি কোন নেক আমল করছে আর মানুষ এতে করে তার প্রশংসা করছে রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ) বললেন, এটা হচ্ছে মুমিনের জন্য আগাম সুসংবাদ{ মুসলিম, হা/ ২৬৪২; আহমাদ, ৫/ ১৫৬} অতএব লোক দেখানো ইবাদাত করা হারাম এবং শির্কআর খালেছ নিয়াতে ইবাদাত করার কারণে প্রশংসিত হওয়া আগাম সুসংবাদ

৭.
ক. যদি কোন ইবাদাত বা আমল ঠিক নিয়াতে সম্পাদিত হয় ; কিন্তু যদি তরীকা ভুল
হয়, তবে তা বাতীল
খ. যদি তরীকা শুদ্ধ হয় কিন্তু খালেছ নিয়াত না থাকে, তবেও তা বাতীল
গ. যদি খালেছ নিয়াত থাকে এবং সাথে সাথে বিশুদ্ধ ভাবে ইবাদাতটি করা হয়, তবেই তা কবুল হবেনতুবা নয়

৮. নিয়াতকে খালেছ করতে হবে কেবল রবের খুশীর জন্য

৯. আর আমল ছহীহ হবে শুধু মাত্র রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) উনার সুন্নার ভিত্তিতে

১০. রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) উনার যুগে রিয়াকে ছোট শিরক বলে গণ্য করা হতো {তাবারানী, হা/৭১৬০; হাকিম, ৪/৩২৯ ; ছহীহ তারগীব, ১/ ১৮}

গুপ্ত শিরক বলার কারন হচ্ছে, কেননা, রিয়াকারী বাহ্যিকভাবে এমন ভাব ধরে যে, তাতে মনে হবে সে কেবল রবের খুশীর জন্যই ইবাদাত করছে কিন্তু তার আসল নিয়াত তার মনে গোপন থাকে, যা বাহির হতে জানা যায় না, তাই একে গুপ্ত শির্ক বলা হয়


আল্লাহ্‌ রাব্বুল আলামিন আমাদের সঠিক ভাবে ইবাদত করার তৌফিক দান করুন আর রিয়া থেকে বাছান আমিন।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ পোষ্ট টা পড়ে যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্স এ আপনার মতামত জানাবেন আর আপনার বন্ধু বান্দব দের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন্নাআসসালামু আলাইকুমফি আমানিল্লাহ !!! আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সঠিক বুজ দান করুন।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: