9.25.2014

মুরতাদ কাফির দেওয়ানবাগীর কুফরি শিরিকি আক্বিদা।

ছবিতে পেট মোটা এই লোকটিকে কি চিনতে পারছেন? এ হচ্ছে ঢাকার আরামবাগের দেওয়ানবাগী হুজুর নামে পরিচিত অনেকেই এই বিশাল আদী পশুটাকে আদর করে খোদার খাঁসি নামে ডাকেনসরল মুসলমানদের দান-দক্ষিনায় এই খাঁসি দিন দিন গন্ডারে পরিণত হচ্ছেঅনেক শিক্ষিত বেকুবের পকেটের টাকায় ঢাকার আরামবাগ ও মতিঝিল এলাকায় কোটি কোটি টাকার সম্পত্তির মালিক সে হয়েছে সে নাকি প্রায়ই আমাদের নবীজীর (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) উনার সাথে সাক্ষাত করে (নাউযুবিল্লাহ) মাঝে মধ্যে আল্লাহ সুভাহানাহু ওয়া তায়ালার উনার সাথেও তার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলাপ আলোচনা হয় (নাউযুবিল্লাহ) এখন আপনারাই বলেন, এই খোদার খাসিকে সুস্থ, নাকি অসুস্থ বলবেন? ইসলাম ধর্ম এদের হাতে কি পরিমাণ প্রতিনিয়ত ধর্ষিত হচ্ছে, অথচ ধর্মবাদী ও ধর্মব্যবসায়ীদের মুখে টুশব্দটিও নাই নামধারী হেফাজত/জামাত-শিবির এই জানোয়ার টার বিপক্ষে কিছুই বলেনা এমনকি এরা সরকারের পৃষ্টপোষকতায় লালিত পালিতমতিঝিলে বাংলাদেশ ব্যাংকের পিছনে তার এক বিশাল উঠের খামার আছেসেই উঠের দুধ আর মুত বিক্রি করে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করেবেকুব বাঙালী উটের দুধ আর মুতকে শরবতে তহুরা (বেহেস্তী শরবত) মনে করে প্রতিদিন পান করছেমতিঝিলের ঐ জায়গাটাও তার দখলকৃত সম্পত্তিএত বিত্তশালী ধর্ম ব্যবসায়ীর কোটি কোটি টাকার সন্ধান কি দুদকপায় না? সরকারের নজরে কি আসেনা? এসব ধর্মীয় ভন্ডামীর অবসান চাইএদেশের নির্বোধ ধর্মপ্রাণ মানুষকে প্রতারণার হাত থেকে রক্ষা করা সরকারের নৈতিক দায়িত্বতর্কহয় (নাউযুবিল্লাহ) তার দেওয়ানবাগ থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন বই পড়লে এই ভন্ডকে একজন অসুস্থ মানুষ ছাড়া কিছুই মনে হবেনাএর ভন্ডামীর নমুনা হিসাবে এই ভন্ডের নিজের হাতে লিখিত তার খানকা কর্তৃক প্রকাশিত বিভিন্ন বই ও প্রকাশনা থেকে কিছু ভন্ডামী এখানে কোড করা হলঃ

১.”‘দেওয়ানবাগী স্বপ্নে দেখে ঢাকা এবং ফরিদপুরের মধ্যবর্তী স্থানে এক বিশাল বাগানে ময়লার স্তূপের উপর বিবস্ত্র অবস্থায় নবীজীর (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) উনার প্রাণহীন দেহ নিয়ে পড়ে আছেন (নাউযুবিল্লাহ মিন যালিক) মাথা দক্ষিন দিকে, পা উত্তর দিকে প্রসারিতবাম পা হাঁটুতে ভাঁজ হয়ে খাড়া আছেআমি উদ্ধারের জন্য পেরেশান হয়ে গেলামতাঁর বাম পায়ের হাঁটুতে আমার ডান হাত দিয়ে স্পর্শ করার সাথে সাথে দেহে প্রাণ ফিরে এলএবং তিনি আমাকে বললেন, ”হে ধর্মের পুনর্জীবন  দানকারী, ইতিপূর্বে আমার ধর্ম পাঁচবার পুনর্জীবন লাভ করেছে” [ সূত্র: রাসূল কি সত্যিই গরিব ছিলেন-দেওয়ানবাগ থেকে প্রকাশিত]

মুরতাদ কাফির দেওয়ানবাগীর কুফরি শিরিকি আক্বিদা।
মুরতাদ কাফির দেওয়ানবাগীর কুফরি শিরিকি আক্বিদা। 
২.একদিন ফজরের পর মোরাকাবারত অবস্থায় আমার তন্দ্রা এসে যায়আমি তখন নিজেকে লুঙ্গি-গেঞ্জি পরিহিত অবস্থায় রওজা শরীফের নিকট দেখতে পাইদেখি রওজা শরীফের উপর শুকনা পাতা এবং আগাছা জমে প্রায় এক ফুট পুরু হয়ে আছেআমি আরো লক্ষ্য করলাম, রওজা শরীফে শায়িত মহামানবের মাথা মোবারক পূর্ব দিকে এবং মুখমণ্ডল দক্ষিন দিকে ফিরানোএ অবস্থা দেখে আমি আফসোস করতে লাগলামএমন সময় পাতার নীচ থেকে উঠে এসে এ মহামানব বসলেনতার বুক পর্যন্ত পাতার উপর বের হয়ে পড়েতিনি আমার দিকে তাকিয়ে বললেন, আপনি দয়া করে আমার রওজা পরিষ্কার করে দেবেন না ? আমি বললাম, জী, দেবোতিনি বললেন, তাহলে দিন নাএভাবে বারবার তিনবার বলায় আমি এক একটা করে পাতা পরিষ্কার করে দেইএরপর আমার তন্দ্রা ভেঙে যায়(নাউযুবিল্লাহ) [সূত্র: রাসূল কি সত্যিই গরিব ছিলেন-দেওয়ানবাগ থেকে প্রকাশিত]

৩.দেওয়ানবাগী এবং তার মুরীদদের মাহফিলে স্বয়ং আল্লাহ্ পাক, সমস্ত নবী রাসুল আলাইহিমুস সালাম, ফেরেস্তা আলাইহিমুস সালাম, দেওয়ানবাগী ও তার মুর্শিদ চন্দ্রপাড়ার মৃত আবুল ফজলসহ সমস্ত ওলি আওলিয়া, এক বিশাল ময়দানে সমবেত হয়ে সর্বসম্মতিক্রমে দেওয়ানবাগীকে মোহাম্মাদী ইসলামের প্রচারক নির্বাচিত করা হয়অত:পর আল্লাহ সবাইকে নিয়ে এক মিছিল বের করেনমোহাম্মাদী ইসলামের চারটি পতাকা চারজনের, যথাক্রমে আল্লাহ, এবং রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম), দেওয়ানবাগী এবং তার পীরের হাতে ছিলআল্লাহ, দেওয়ানবাগী ও তার পীর প্রথম সারিতে ছিলেনবাকিরা সবাই পিছনের সারিতে (নাউযুবিল্লাহ) আল্লাহ নিজেই স্লোগান দিয়েছিলেন মোহাম্মাদী ইসলামের আলো, ঘরে ঘরে জ্বালো” [সূত্র: সাপ্তাহিক দেওয়ানবাগী পত্রিকা- ১২/০৩/৯৯]

৪.অন্তর্দৃষ্টি খোলা এক আশেক দেখতে ছিলেন এই অনুষ্ঠান রাহমাতুলি্লল আলামীন তাশরীফ নিয়েছেনএবং রাব্বুল আলামীন দয়া করে তাশরীফ নিয়েছেনরাব্বুল আলামীন এসে একটা নির্দেশ করেছেন যে, এ বিশ্ব আশেকে রাসূল সম্মেলনে যত আশেকে রাসূল অংশগ্রহণ করেছেন রাব্বুল আলামীন ফেরেস্তাদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন সমস্ত আশেকে রাসূলদের তালিকা তৈরী করতেএই তালিকা অনুযায়ী তারা বেহেস্তে চলে যাবেএটা কি আমাদের জন্য বুলন্দ নসীব নয় কি ? যারা গত বিশ্ব আশেকে রাসূল সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেছেন তাদের জন্য কি এটা চরম পাওয়া নয় ?” [সুত্র: মাসিক আত্মার বাণী, নভেম্বর : ১৯৯৯]

৫. দেওয়ানবাগীর একজন খাদেম (নাম আহমাদুল্লাহ যুক্তিবাদী) এক আশেকে রাসুল সম্মেলনে বলে- আমি স্বপ্নে দেখলাম হযরত ইব্রাহীম আলাইহিস সালাম নির্মিত মক্কার কাবা ঘর এবং স্বয়ং রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বাবে রহমতে হাজির হয়েছেনআমাকে উদ্দেশ্য করে নবী করীম (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলছেন তুমি যে ধারণা করছ যে, শাহ্ দেওয়ানবাগী হজ্জ করেননি আসলে এটা ভুলআমি স্বয়ং আল্লাহর নবী মোহাম্মাদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) উনার সাথে আছি এবং সর্বক্ষণ থাকিআর কাবা ঘরও তার সামনে উপস্থিত আছেআমার মোহাম্মাদী ইসলাম শাহ্ দেওয়ানবাগী প্রচার করতেছেন।

তার কুফরির একটি ভিডিও আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম প্রয়োজন মনে করলে দেখতে পারেন



এখন আপনারাই বলেন, এই খোদার খাসিকে সুস্থ, নাকি অসুস্থ বলবেন? ইসলাম ধর্ম এদের হাতে কি পরিমাণ প্রতিনিয়ত ধর্ষিত হচ্ছে, অথচ ধর্মবাদী ও ধর্মব্যবসায়ীদের মুখে টুশব্দটিও নাইএরা সরকারের পৃষ্টপোষকতায় লালিত পালিতমতিঝিলে বাংলাদেশ ব্যাংকের পিছনে তার এক বিশাল উঠের খামার আছেসেই উঠের দুধ আর মুত বিক্রি করে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করেআবাল বাঙালী উটের দুধ আর মুতকে শরবতে তহুরা (বেহেস্তী শরবত) মনে প্রতিদিন পান করছেমতিঝিলের ঐ জায়গাটাও তার দখলকৃত সম্পত্তিএত বিত্তশালী ধর্ম ব্যবসায়ীর কোটি কোটি টাকার সন্ধান কি দুদকপায় না? সরকারের নজরে কি আসেনা? এসব ধর্মীয় ভন্ডামীর অবসান চাইএদেশের নির্বোধ ধর্মপ্রাণ মানুষকে প্রতারণার হাত থেকে রক্ষা করা সরকারের নৈতিক দায়িত্ব

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ
 পোষ্ট টা পড়ে যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্স এ আপনার মতামত জানাবেন আর আপনার বন্ধু বান্দব দের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন্না
আসসালামু আলাইকুমফি আমানিল্লাহ !!! আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সঠিক বুজ দান করুন।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: