11.30.2014

বাংলাদেশে রেজাখানিদের একটি সংগঠনের নাম দাওয়াতে ইসলামী।

বাংলাদেশে রেজাখানিদের একটি সংগঠনের নাম দাওয়াতে ইসলামী এ সংগঠনটি ঢাকাস্থ মাদারটেক, মুহম্মদপুর, সায়দাবাদসহ কয়েকটি এলাকায় মসজিদে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকেসংগঠনটি চেনার উপায় সাদা পাঞ্জাবি, মাথায় সবুজ পাগড়ি ও গলায় খয়েরী চাদর দেখেতারা দাবি করে, তাদের সংগঠনের মূল ইয়িলাস আত্তার কাদেরী নামক এক পাকিস্তানী লোক (এ লোকটি মাদানী টিভিনামে একটি টিভি চালিয়ে থাকে) অনেক আগে কার্যক্রম শুরু করলেও গত বছর তারা আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশে তাদের কার্যক্রম শুরু করে ( http://goo.gl/4NB9e4 )

অর্থাৎ, বাংলাদেশে সংগঠনটি কার্যক্রম শুরু হয়েছে, কিন্তু তা পরিচালিত হচ্ছে পাকিস্তান থেকেএখন আমার কথা হচ্ছে, দাওয়াতে ইসলামী সংগঠনটির মূলরা পাকিস্তানে বসে কি করছে সেটা কিন্তু আমাদের জানা উচিতএখানে জেনে রাখা প্রয়োজন, দাওয়াতে ইসলামী নামক সংগঠনটি একটি তাবলীগ জামাতের কপিপেস্ট সংগঠনউপর দিয়ে তারা দুনিয়ার ভাজা মাছটি উল্টে খেতে জানে নাতাদের প্রকাশ্য কার্যক্রম: দাওয়াত দেয়া, বিভিন্ন মসজিদে অবস্থান করা, চিল্লা দেয়া (তারা চিল্লা বলে না, বলে ইস্তেমা), মসজিদে বেলায় বেলায় ফয়জানে সুন্নতনামক বই পড়া ইত্যাদিএগুলোর মাধ্যমে মাদানী টিভি পরিচালনাকারী ইলিয়াস কাদেরীর মূল টার্গেট যে লোক রিক্রুট করা সেটা খুব ভালোভাবে বুঝা যায়। ( http://goo.gl/TvvkXK )

ছবি: পাকিস্তানে সুন্নী তেহরিক কর্মীদের সশস্ত্র মহড়া, সুন্নী তেহরিকের লোগো হচ্ছে দুই হাত এক করা, মাঝে পাকিস্তানের সবুজ চাদ-তারা
ছবি: পাকিস্তানে সুন্নী তেহরিক কর্মীদের সশস্ত্র মহড়া, সুন্নী তেহরিকের লোগো হচ্ছে দুই হাত এক করা, মাঝে পাকিস্তানের সবুজ চাদ-তারা
কিন্তু লোক রিক্রুট করে পরবর্তী উদ্দেশ্য কি ?? আপনাদের জেনে রাখা প্রয়োজন পাকিস্তানে বেরেলভী দলগুলো মধ্যে সবচেয়ে উগ্র সংগঠন সুন্নী তেহরিকর নামক দলটির আবির্ভাব ঘটেছিলো দাওয়াতী ইসলামী নামক এ সংগঠনটির পেট থেকেইমানে ইলিয়াস আত্তার কাদেরী মুরীদ সেলিম কাদেরী মাধ্যমে দাওয়াতই ইসলামী কর্মীদের নিয়েই সৃষ্টি করেছিলো এ সংগঠনটিদুটো আলাদা সংগঠন ও বেশভুষা আলাদা হয়ে গেলেও তাদের ভেতর রয়েছে পুরোপুরি অন্ত:যোগাযোগ। (সূত্র: https://lubpak.com/archives/239329 )

এখানে একটি জিনিস অনুধাবন করা প্রয়োজন, পাকিস্তানে সুন্নী তেহরিক ( http://goo.gl/4E72i7 ) নামক উগ্র রেজাখানি সংগঠনটি যে কারণেই সৃষ্টি হোক, যেহেতু বাংলাদেশে দাওয়াতে ইসলামী নামক তাদের গুরু সংগঠনের কার্যক্রম আছে তাই আমাদের দেশের বাস্তবতা বিবেচনা করেই উক্ত সংগঠনটির দিকে খেয়াল রাখার দরকারকারণ:
১) সম্রাজ্যবাদীরা কৌশলে পাকিস্তানে বিভিন্ন ধর্ম নির্ভর দলগুলোর মধ্যে সশস্ত্র সংঘাত তৈরী করেছে, উদ্দেশ্য পুরো পাকিস্তানকে অস্থিতিশীল করে রাখামুসলমানরাই নিজেরা নিজেদের বোমা মেরে পরষ্পরকে মেরে ফেলছেকিন্তু আমরা চাই না, বাংলাদেশেও পাকিস্তানের মত পরিবেশ তৈরীর সুযোগ দেয়া হোক
২) দাওয়াতে ইসলামী সরাসরি পরিচালিত হয় পাকিস্তান থেকেপাকিস্তানে কেন্দ্র থেকে কোন উপায়ে বাংলাদেশে তাদের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে তা যাচাই করার দরকার আছে
৩) দেশী সংগঠনগুলো যাই করুক, তারা সবাই বাংলাদেশীদেশে নাগরীকদের সবকিছু করাও সম্ভব নয়কিন্তু যখন কোন সংগঠন পাকিস্তান থেকে নিয়ন্ত্রিত হয়, যাদের প্রচুর সরবরাহকারী ফান্ড (টিভি চ্যানেল চালাতে কত খরচ হয় সেটা সবার জানা) রয়েছে, সেক্ষেত্রে দেশ পাড়ি দিয়ে কার্যক্রম সন্দেহের সৃষ্টি করেকারণ দুইদিন পর লোকবল বাড়লে তারাও যে সুন্নী তেহরীকের বাংলাদেশ শাখা খুলবে না তার গ্যারান্টি কি ??

তাই দাওয়াতে ইসলামী নামক সংগঠনটি কার্যক্রমের দিকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর দৃষ্টি দেয়া জরুরী বলেই মনে করি


বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ পোষ্ট টা পড়ে যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্স এ আপনার মতামত জানাবেন আর আপনার বন্ধু বান্দব দের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন্নাআসসালামু আলাইকুমফি আমানিল্লাহ !!! আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সঠিক বুজ দান করুন।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: