12.04.2014

স্ত্রীকে মুহাব্বত করার সুন্নাত তরীকা ।

আমাদের সমাজে অনেক মুসলমান আছেন যারা ঘরের স্ত্রিদের চাকরানি মনে করেন এমনকি অনেক সময় সামান্য বিষয় নিয়ে তুচ্ছ তাছ্যিল্য করে থাকেন অথছ যিনি রাহমাতাল্লিল আলামিন তিনি কিভাবে উনার আহলিয়া উনাদের সাথে আচার ব্যবহার করেছেন আসুন তা যেনে নিজেকে শুধরাই।
স্ত্রীকে মুহাব্বত করার সুন্নাত তরীকা ।
স্ত্রীকে মুহাব্বত করার সুন্নাত তরীকা ।
রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিবিগণকে খুব মুহাব্বত করতেন
তাদেরকে চুমু দিতেন এবং কখনো কখনো তাদের উরুতে মাথা রেখে শুয়ে থাকতেন
হযরত আয়েশা আলাইহাস সালাম পাত্রের মুখের যে জায়গায় মুখ দিয়ে পানি পান
করতেন, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সে জায়গায়ই মুখ দিয়ে পান করতেন
রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাঁড়ের যে জায়গা থেকে গোস্ত খাওয়া শুরু
করতেন হযরত আশয়া আলাইহাস সালাম ও হাড়ের ঐ জায়গা থেকে গোস্ত খাওয়া শুরু
করতেন
মাঝে মাঝে বিবিদের সাথে বসে বিভিন্ন ঘটনা, কাহিনী ও আন্যান্য আলোচনা করতেনএক এক বিবি নতুন নতুন কিসসা শুনাতেন, তখন রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আনন্দে উৎফুল্ল হয়ে নিজেও কিসসা শুনাতেন আম্মাজান হযরত আয়েশা সিদ্দিকা আলাইহাস সালাম তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদের মধ্যে এমনভাবে হাসতেন, কথা বলতেন ও বসে থাকতেন, আমাদের মনেই হতো না যে তিনি একজন মহান পয়গাম্বর। (উসওয়ানে রাসূলে আকরাম)
তিনি মাঝে মাঝে আনসারী বালিকাদের খেলাধূলা করার জন্য হযরত আয়েশা সিদ্দিকা আলাইহাস সালাম উনার কাছে ডেকে আনতেন এবং তিনি তাদের সাথে খেলাধূলায় যোগ দিতেন
একবার রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হযরত আয়েশা সিদ্দিকা আলাইহাস সালাম উনার সাথে দৌড় প্রতিযোগিতা দিয়ে ইচ্ছা করে হেরে যান কিছুদিন পর পুনরায় দৌঁড় হলে হযরত আয়েশা সিদ্দিকা আলাওইহাস সালাম হেরে যানঅতঃপর রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, হে আয়েশা! আজ আমি তোমাকে হারিয়ে দিয়েছি, তুমি আমার সঙ্গে পার নিএটা প্রথম প্রতিযোগিতায় তুমি জিতে যাওয়ার বদলা
(আবু দাউদ শরীফ, হাদীস নং-২২১৪)
তিনি কখনোই বিবিদের ভৎসনা, তিরস্কার করতেন না এবং তাদের সাথে রুক্ষ্ম ভাষায়
কথা বলতেন নাবরং মায়া জড়ানো, মন জুড়ানো আকর্ষণীয় কথা ও ভাবভঙ্গি দিয়ে বুঝিয়ে দিতেন তাদের কোন কথা মনের বিপরীত হলে তাদের সে কথা থেকে মনোযোগ ফিরিয়ে অন্য চিন্তা করতেন
আম্মাজান আয়েশা সিদ্দিকা আলাইহাস সালাম বলেন, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম অত্যন্ত খুশি মনে মুচকি হাসতে হাসতে গৃহে প্রবেশ করতেন এবং হৃদয়পূর্ণ সালাম দিতেন (উসওয়ায়ে হাসানাহ)
১০রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কখনো বিছানার ব্যাপারে দোষ ধরতেন না, যা পেতেন তার উপরই শুয়ে থাকতেন। (আদাবু নবী)
১১রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলতেন, তোমাদের মধ্যে সে-ই উত্তম যে তার স্ত্রীর সঙ্গে ভাল ব্যবহার করেআমি আমার স্ত্রীদের সাথে সবার চাইতে ভাল ব্যবহার

করি। (তিরমিযী শরীফ, হাদীস নং-১০৮২) (সুন্নাতি জিন্দেগী)

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ পোষ্ট টা পড়ে যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্স এ আপনার মতামত জানাবেন আর আপনার বন্ধু বান্দব দের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন্নাআসসালামু আলাইকুমফি আমানিল্লাহ !!! আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে সঠিক বুজ দান করুন। 


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

1 comment:

  1. প্রয়োজনীয় পোষ্ট শেয়ার করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ
    Musllimeria Islamic Video

    ReplyDelete