6.24.2016

আপনি কি হাতে লাল সুতার রহস্য সম্পর্কে অবগত?

আপনি কি হাতে লাল সুতার রহস্য সম্পর্কে অবগত?
করিম সাহেব গেছেন হাসপাতালে, ছেলে অসুস্থ লোকাল ডাক্তার বলেছে হাসপাতলে ভর্তি করতে হবেকয়েকদিন হসপিটাল ট্রিটমেন্ট দিলে সুস্থ হয়ে যাবে, বাসায় এত রেগুলার চিকিৎসা করা সম্ভব নয়করিম সাহেব সামান্য চাকুরে, এত টাকা নেই যে প্রাইভেট হাসপাতালে রেখে ছেলের চিকিৎসা করাবেনতাই গিয়ে ভর্তি হলেন এক সরকারি হাসপাতালে

হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর করিম সাহেব একটি অদ্ভূত বিষয় লক্ষ্য করলেন, হাসপাতালে যে ডাক্তার তার ছেলেকে দেখতে আসে তার ডান হাতে লাল সূতা বাধা, একটু পরে যে নার্স আসলো ইঞ্জেকশন দিতে তারও হাতে লাল সূতা বাধাপ্রত্যেক শিফটের অধিকাংশ নার্সের একই অবস্থাকরিম সাহেব গেলেন হসপিটাল ডিসপেনসারিতেসেখানেও ক্যাশে বসে আছে হাতে লাল সূতা ওয়ালা একজনক্যাবিন পেতে তিনি যোগাযোগ করলেন হসপিটালের প্রশাসন বিভাগে, সেখানেও বসে আছে হাতে লাল সূতা ওয়ালা একজনএমনকি যে দারোয়ান আসছে তার হাতেও লাল সূতা বাধাকরিম সাহেব কৌতুহল বশত দাড়োয়ানের বুকে নেমপ্লেটের দিকে তাকালেনদেখলেন দাড়োয়ানের নাম বিজয় চন্দ্র দাসকরিম সাহেব হাতে লাল সূতা বাধা এক নার্সের নাম জিজ্ঞেস করলেন, জানতে পারলেন নাম স্বপ্না রাণীকৌশলে ডাক্তারের নামও জেনে নিলেন, নাম উৎপল সাহা

করিম সাহেব বহু সনাতন ধর্মের লোকের সাথে চলেছেন, এতদিন তাদের হাতে লাল সূতা বাধা থাকতো নাকিন্তু হঠাৎ করেই তাদের হাতে কেন লাল সূতার আধিক্য বেড়ে গেলো কেন ? এ বিষয়টি নিয়ে চিন্তায় পড়ে গেলেনকরিম সাহেব ছোট চাকুরে করতে পারেন, কিন্তু বই পড়ার অভ্যাস তার দীর্ঘদিনেরতিনি এতটুকু ধারণা করতে পারেন, ‘লাল সূতাহচ্ছে একটি বিশেষ প্রতীক এবং সেই প্রতীকটি হচ্ছে একটি কমিউনিটির নির্দেশকএতদিন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা সাধারণ ব্যক্তি হিসেবেই প্রবেশ করতো চাকুরেতে, কিন্তু এখন প্রবেশ করছে একটি বিশেষ কমিউনিটি তরফ থেকে, যার প্রতীক হচ্ছে ঐ লাল সূতা

করিম সাহেব পরিস্থিতির কথা চিন্তা করে ভয় পেয়ে যানকারণ যে বা যারা কমিউনিটির তরফ থেকে হিন্দুদের প্রবেশ করাচ্ছে, তারা অবশ্যই কোন লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছেআগে যে রকম সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সাধারণ মনে করা হতো, এখন তারা সেই পরিস্থিতিতে নেইতাদের প্রবেশ সংগঠনের সদস্য হিসেবে, উদ্দেশ্য সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তার করা, নিয়ন্ত্রণ করাউপরের হর্তা-কর্তার হয়ত উপরের নির্দেশ পেয়ে, ঘুষ-দুর্নীতি করে লাল সূতা ওয়ালাদের সুযোগ করে দিচ্ছে, কিন্তু এর ফল তারা নিজেরাও চিন্তা করে দেখেছে বলে মনে হয় নালাল সূতা ওয়ালাদের একচেটিয়া প্রবেশ করিয়ে একটি স্বাধীন দেশকে পঙ্গু করে দেওয়া হচ্ছে, সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণকে করা হচ্চে স্বাধীনতাহীন


করিম সাহেব, আর হাসপাতালে থাকলেন না, একদিন চিকিৎসা নিয়েই বাসায় ফিরে গেলেনতিনি চিন্তিতঐ হাসপাতাল তার অসুস্থ ছেলে আর সারাতে পারবে না, খোদ হাসপাতালের নিজের অবস্থাই এখন মুমূর্ষু


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: