7.10.2016

কথিত "আইএস" কাদের উপর হামলা করে? হামলা করে কি মেসেজ দেয়??

কথিত "আইএস" কাদের উপর হামলা করে? হামলা করে কি মেসেজ দেয়??
কথিত "আইএস" কাদের উপর হামলা করে? হামলা করে কি মেসেজ দেয়??
আজকে যদি বাংলাদেশের আনাচে কানাচে গিয়ে একজন দিন মজুর নিরক্ষরকেও জিজ্ঞেস করা হয় যে আপনি কি জানেন বর্তমানে দেশে কারা হামলা করে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে তাহলে মনে হয়না এমন কাউকে পাওয়া যাবে যে বল্বেনা আইএস কারন হলুদ মিডিয়ার কারনে সবাই এই বিষয় কেই মাথায় ঢুকিয়ে ফেলেছে অথচ যদি জিজ্ঞাসা করা হয় বলুনতো আইএস কি? এরা কারা? তাহলে দলিল প্রমাণ সহ মনে হয়না দুই একজন কেও পাওয়া যাবে যে সঠিক উত্তর দেবে যা আমরা প্রমাণ করে দিয়েছি আমাদের এই পোষ্টে সালাফি মতবাদী আইএস হচ্ছে আমেরিকা-ইসরাইলের যৌথ সৃষ্টি সন্ত্রাসী সংগঠন!!!।

কিন্তু হঠাৎ করে বাংলাদেশে এতো মারাত্বক হামলা হচ্ছে কেনো? এবং হামলার সাথে সাথে কথিত আইএস কেনো এর দায়ভার নিয়ে নিচ্ছে? তাহলে আসুন জেনে নেই কি সেই কারন হতে পারে যে আজকে বাংলার মানুষের মুখে মুখে আইএস নামক ইসলাম বিদ্বেষী প্রোপাগান্ডা টি ঘুরছে 

১) সিরিয়ার বাশার আল আসাদের রাশিয়ার সাথে কানেকশন অনেকদিনের। আমেরিকা চায় না রুশপন্থী বাশার আল আসাদ ক্ষমতায় থাকুক। তাই সৃষ্টি হলো কথিত আইএস, হামলা হলো সিরিয়ায়। আর তার পরের অবস্থা তো নির্মম ইতিহাস যা এই ভিডিও দেখলে আপ্নার ব্রেইন হ্যং হয়ে যাবেঃ https://www.youtube.com/watch?v=zS7RXcXVlgQ

২) ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রাসোঁয়া ওলাদ, স্যোশালিস্ট পার্টি। সম্পর্ক তার আমেরিকার সাথে নয়, রাশিয়ার সাথে। ২০১৫ তে প্যারিস অ্যাটাক করে কথিত আইএস ফ্রাসোঁয়া ওলাদকে বুঝিয়ে দিলো আমেরিকাকে বাদ দিয়ে রাশিয়ার সাথে সম্পর্ক ভালো করলে কি হয় ?

৩) রাশিয়ার সাথে পরমানু চুক্তি করেছেন শেখ হাসিনা। তৈরী হবে রূপপুর পরমানু বিদ্যুৎকেন্দ্র। গত ২১ জুন স্থান সনদবা সাইট লাইসেন্স পাওয়ার পর মোটামুটি নিশ্চিত হয়ে যায় বাংলাদেশ পরমাণু বিদ্যুৎ প্রকল্প হচ্ছে। কিন্তু মাত্র দুই সপ্তাহের মধ্যে গুলশানে হামলা করা হলো, সিএনএন-এ সরাসরি সম্প্রচার করা হলো। বিশ্বজুড়ে প্রচার পেলো- বাংলাদেশ জঙ্গী রাষ্ট্র, সেখানে পরমাণু প্রকল্প অবশ্যই রিস্কি। আর হাসিনাকে শিক্ষা দেওয়া হলো- আমেরিকার কথা না শুনলে আর রাশিয়ার সাথে ঘষাঘষি করলে শাস্তিটা কি ?

৪) গত নভেম্বরে তুরস্কে রাশিয়ান বিমান ফেলে দেওয়ার পর রাশিয়া-তুরষ্কের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিলো না। কিন্তু গত ২৭শে জুন তুরষ্ক রাশিয়ার কাছে দুঃখ প্রকাশ করে, ধারণা করা হয় এর মাধ্যমে তুরষ্ক-রাশিয়ার সম্পর্ক আবার স্বাভাবিক হবে। কিন্তু এর মাত্র একদিন পরেই তুরষ্কের ইস্তাম্বুল বিমানবন্দরে বোমা হামলা চালালো কথিত আইএস। বোমা হামলায় মারা গেলো অর্ধশত মানুষ, আহত হলো আড়াইশ। বুঝিয়ে দেয়া হলো- আমেরিকাকে পাশ কাটিয়ে রাশিয়ার সাথে সম্পর্ক ভালো করলে কি হয় ?


আমি আগেও বলেছি, আবারও বলছি, আইএস হচ্ছে আমেরিকার গুন্ডা বাহিনী যেমনঃ ফ্ল্যাশব্যাকঃ যেভাবে তৈরী হয়েছিল সালাফি মতবাদি সন্ত্রাসী সংগঠন আইএস এবং সন্ত্রাসী সংগঠনসালাফি মতবাদী আই এস এর অর্থের যোগানদাতা কে?। কোন দেশ যদি আমেরিকার স্বার্থের বিরুদ্ধে যায় কিংবা মার্কিন শত্রু রাশিয়ার সাথে সম্পর্ক ভালো করে, তখন সেখানে আইএস পাঠিয়ে বুঝিয়ে দেওয়া হয় কত ধানে কত চাল কারন সালাফি মতবাদী আইএস হচ্ছে আমেরিকা-ইসরাইলের যৌথ সৃষ্টি সন্ত্রাসী সংগঠন!!!। যাদের মাথা আছে, তারা সবাই বুঝে কি ঘটছে। কিন্তু সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য ব্যবহার করা হয় ইসলাম ধর্মের ছদ্মাবরণ, এতে এক ঠিলে দুই পাখি মারেআমেরিকা। 


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: