7.02.2016

গুলশানের হামলায় ভারত আমেরিকা নিজের চর্কায় তেল দাও, তোমাদের সাহায্যের দরকার নাই সুযোগ নেওয়ারও কিছু নাই

গুলশানের হামলায় ভারত আমেরিকা নিজের চর্কায় তেল দাও, তোমাদের সাহায্যের দরকার নাই। সুযোগ নেওয়ারও কিছু নাই
গুলশানের হামলায় ভারত আমেরিকা নিজের চর্কায় তেল দাওতোমাদের সাহায্যের দরকার নাই। সুযোগ নেওয়ারও কিছু নাই

গুলশানে হামলার জন্য আমেরিকা এবং ভারতের এত চিন্তিত হওয়ার কিছু নাই এর জন্য আমেরিকা বা ভারতের এত হা-হুতাশ করারও কিছু নাই এতে যদি হা হুতাশ করে তাহলে বাংলাদেশ করবে যদি কিছু আসে যায় তাহলে তা বাংলাদেশেরবাংলাদেশী বাহিনী এ ধরনের হামলা সামাল দেওয়ার জন্য যথেষ্ট এবং তাদের সেই পূর্ণ শক্তি রয়েছে তা অলরেডি প্রমাণ হয়ে গেছেএবং এটা বাংলাদেশী বাহিনীর জন্য খুব ছোটো কাজই বলতে হবেমাত্র ৪৫ মিনিটের অভিজানে ৮ জন হামলকারীর বিরুদ্ধে মাত্র ৫ জনের মৃত্যুর মাধ্যমে এ ধরনের একটি হামলা নিষ্ক্রিয় করা গেছে, এটা অনেক বড় কৃতিত্বের বিষয়বাংলাদেশী বাহিনী অবশ্যই প্রশংসা পাওয়ার দাবীদার এবং সরকার যেনো তাদের যথাযথ কৃতিত্ব দান করে এই আশা ব্যক্ত করছি

উল্লেখ্যঃ- একই ধরনের হামলা যখন বহিঃবিশ্বের ক্ষমতাধর দের ঘরে ঘটেছিলো অর্থাৎ

২০০৮ সালে মুম্বাই হামলার সময় অ্যাটাক করেছিলো ১০ জন সন্ত্রাসীটোটাল নিহত হয়েছিলো ১৭৫ জন, আহত হয়েছিলো ৬০০ভারতের ৫ বাহিনীর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সময় লেগেছিলো ৫৭ ঘণ্টাঅর্থাৎ দুই দিনের বেশি

২০১৫ সালে প্যারিস হামলার সময় অ্যাটাক করেছিলো ৮ জন সন্ত্রাসীমারা গিয়েছিলো ১৩৭ জন, আহত হয়েছিলো ৩৬৪ জনঅভিজানে সময় লেগেছিলো ৩ ঘণ্টা ১৮ মিনি্ট
ফ্রান্স বা ভারত নিজেদের এত বড় শক্তিধর দাবি করা সত্ত্বেও এ ধরনের একটি হামলা সামাল দিতে তাদের যথেষ্ট বেগ পোহাতে হয়হতাহতের পরিমাণও অনেক বেশিঅপরপক্ষে বাংলাদেশী বাহিনী মাত্র ৪৫ মিনিটের অভিজানে মাত্র ৫ জন নিহত হওয়ার বিনিময়ে ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনে

এতএব বাংলাদেশের কোনো সাহায্যের প্রয়োজন নাই ভারত নামক শকুন রাষ্ট্রের আমারিকার মাধ্যমে। কারন খোদ আমারিকাই সিরিয়ার(সন্ত্রাসী আইএস নির্মূলের) ব্যপারে রাশিয়ার কাছে সাহায্য চায় যেখানে (http://goo.gl/N9lD2w) (http://goo.gl/TkIl8K); সেখানে যদি বাংলাদেশে আই এস থাকে তাহলে আমেরিকা কিভাবে আমাদের সাহায্য করবে বরং যদি বাংলাদেশ সরকারের বিদেশি শক্তির প্রয়জন হয় তাহলে সরাসরি রাশিয়া এবং অপর শক্তিধর চিনের কাছে চলে যাবে।

পুরো বিষয়টা সংক্ষেপে একটি কাহিনী দিয়ে বোঝার চেষ্টা করি আসুনঃ অনেকদিন আগে একটি বাংলা ছায়াছবি দেখেছিলাম যখন টিভি দেখতাম, ঘটনাটা ছিলো এইরকম যে ভিলেন নায়িকার বাবার সম্পত্তি ও নায়িকাকে পাওয়ার লোভে তার পথের কাঁটা একমাত্র শত্রু নায়ককে শায়েস্তা করার জন্য অর্থাৎ এক ঢিলে তিন পাখি শিকারের জন্য পূর্বপরিকল্পিত ভাবে নায়িকার বাবাকে ধারালো ছুরি দিয়ে খুন করে চলে যাওয়ার আগে নিজেই পুলিশকে হতাহতের বিষয়ে ইনফর্ম করে চলে যায়আর ঘটনার ঠিক পরেই সেই স্পটে নায়কের আগমন ঘটে! আর নায়িকার বাবাকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখে যখনই সাহায্যের হাত বাড়ায় এবং তার জখমের ব্যাথা দূর করতে রক্তাক্ত শরীর থেকে ছুরি তুলেঠিক সেই মুহুর্তে দৃশ্যপটে পুলিশের আগমন ঘটে যার পরিপ্রেক্ষিতে ছুরি হাতে থাকা নায়ককে দেখে খুনি ভেবে গ্রেফতার করেফলাফল নায়ক নায়িকার কাছে তার বাবার খুনি হিসেবে ঘৃনীত এবং আদালতে ফাসির রায় হয়! আসলে সেই ছবির গল্প বলা আমার উদ্দেশ্য না যেটা বলতে চাই এই ছবির গল্প আর গতকালকের ঘটনার সাথে একটা অদ্ভূদ মিল রয়েছে! উদ্দেশ্যমূলক ভাবে আড়াল থেকে অপরাধ করে দেশের ভিতরে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠি তথা (ISIS – Israeli Security Intelligence Service) এর অস্তিত্ব বিদ্যমান প্রমান করে, বিশ্ব দরবারে মুসলমান মানেই সন্ত্রাসী এটা প্রতিষ্ঠা করা এবং সাহায্যের নামে অপরের সম্পদ ভোগ দখলকরা!


তাই আবার বলছিঃ- আমরা জানি ভারত ও আমেরিকার সাহায্য মানে এই সোনার বাংলাদেশকেঃ সিরিয়া আফগানিস্তান, লিভিয়া, ইরাক, ফিলিস্তিনের মতো রাষ্টে পরিণত করা সুতরাং সরকারকে সাবধান থাকতে হবে তাদের ব্যপারে এবং পুলিশ, র‍্যাব, এসবি, ডিবি, বিডিয়ার ও আর্মির উচ্চ পর্যায়ের দেশ প্রেমিক অফিসারদের আর এ ধরনের হামলা সামাল দিতে বাংলাদেশের যথেষ্ট শক্তি-সামর্থ্য আছেভারত-আমেরিকা নিজের চর্কায় তেল দাও, তোমাদের সাহায্যের দরকার নাইসুযোগ নেওয়ারও কিছু নাই


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: