8.10.2016

লা' মাজহাবীরা একটা আপত্তি করে, আপনারা যারা মাজহাবী তারা অন্ধ তাকলিদ করেন কেন? কোন ইমামকে চোখ বুজে অনুসরন করেন কেন?

লা' মাজহাবীরা একটা আপত্তি করে, আপনারা যারা মাজহাবী তারা অন্ধ তাকলিদ করেন কেন? কোন ইমামকে চোখ বুজে অনুসরন করেন কেন?

উত্তরঃ আপনার কোনো অসুখ হয়েছেডাক্তারের কাছে গেলেনডাক্তার আপনাকে কিছু ওষুধ দিলোআপনার মনে শংকা জাগলো, এই ওষুধ খেলে যদি ক্ষতি হয় !! কি জানি কি দিয়ে এই ওষুধ বানিয়েছেআপনি নিজেই বাড়িতে একটা ল্যাবরেটরি খুলে বসলেন এবং ওষুধের উপাদান পরীক্ষা করতে ক্যামিকেল এক্সপেরিমেন্ট শুরু করলেন...!

কি পাগলের প্রলাপ মনে হচ্ছে??

অথবা ডাক্তার টেষ্ট করে বললো, আপনার কিডনীতে সমস্যা হয়েছেঅপারেশন করতে হবেআপনার অনুসন্ধিৎসু মন উতলা হলোআপনি ভাবলেন ডাক্তার যদি অপারেশন করে কিডনীর চিকিৎসার বদলে কিডনীটি খুলে রেখে দেয় !!!!

হা হা হা ! একজন রোগী হিসেবে বিশেষজ্ঞ একজনের ডাক্তারের ফয়সালা না মেনে আপনার যেমন অন্য কোন উপায় নেইযে ওষুধ দিচ্ছে সেটাই আপনাকে চোখ বুজে খেতে হচ্ছে, অপারেশন করতে বললে তাও করতে হচ্ছেকারন এছাড়া আর কোন পথ নাই তাই নিজে নিজে ডাক্তারি জাহির করলে মূল্যবান প্রানখানা হারিয়ে যাবার যেমন সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে ঠিক তেমনি আপনি যদি ইমাম মুস্তাহিদ না হন যদি সাধারণ পাবলিক হয়ে থাকেন আর নিজেই কোরআন সুন্নাহ থেকে মাসালা বের করার চেষ্টা করেন তাহলে আপনার মূল্যবান ঈমান টাও একিই পন্থায় হারিয়ে যাবে

তাকলিদের বেলায়ও একিই বিষয় আপনাকে তা মানতে হবে যদি নিজেকে মুসলিম মনে করেনআপনি চাইলেই নিজের খেয়াল খুশিমত কোন মাসায়ালা নির্নয় করতে পারবেন নাকারন আপনি কুরআন শরীফ মুখস্ত করতে পারেন নাইশানে নযুল ও নাসেখ মানসুখ সম্পর্কেও অজ্ঞলক্ষাধিক হাদীস শরীফও সনদ সহকারে জানেন নাবাংলা বুখারী শরীফ এর মাত্র দুই এক পৃষ্ঠা কোন রকমে পড়েছেনতিরমীযির শরীফের বঙ্গানুবাদ পড়ে পায়ুপথে বায়ু নির্গত হওয়ার পরও নামাজ পড়ে যাবেন অযু ছাড়াকারন আপনি পড়েছেন গন্ধ বা আওয়াজ না পেলে বায়ু নির্গত হলেও অজু ছুটবেনা তাই মসজিদ থেকে বের হবে না আবারো অজু করতে। (তিরমিযী শরীফ ১/৩১)এই হাদীস শরীফের প্রেক্ষাপট কি কাদের জন্য বর্ণিত সেটা আপনার জন্য চিরকালই অজানা থেকে যাবেফলশ্রুতিতে মৃত্যুর পর শূন্য নামাজ নিয়ে কিয়ামতের ময়দানে হাজির হতে হবে

কুরআন শরীফে পাইলেন, তোমাদের জন্য তোমাদের মাতা ও কন্যাকে হারাম করা হয়েছে। (সূরা নিসা শরীফঃ আয়াত শরীফ ২৩) ব্যাস আয়াত শরীফ খানার বঙ্গানুবাদ পড়েই আপনার মন আপনার সুন্দরী লাবন্যময়ি নানী, দাদী, অল্পবয়স্কা নাতনীকে বিয়ে করার ব্যাপারে উৎসাহিত হয়ে উঠলোকারন আপনিতো নানী, দাদী, নতনী বিয়ে করার নিষেধাজ্ঞা সম্বলিত কোন বর্ননা খুঁজে পাবেন নাকি করবেন এখন? করে ফেলবেন?

মুসলিম শরীফের বঙ্গানুবাদ পড়ে দেথলেন- স্বর্ণ, রৌপ্য, গম, যব, খোরমা ও লবন এই ৬ টির সুদ হারাম লেখা আছেআপনার নফস তখন অনুপ্রেরণা দিলো তাহলে এই ৬ টি বাদে অন্যান্য দ্রব্য ও যেমন- ধান, পাট, ইক্ষু, তামা, হীরা ইত্যাদি সুদ তাহলে জায়িয নাউযুবিল্লাহ!

এরূপ লক্ষ কোটি মাসায়ালা আপনার সামনে চলে আসবে যার সদুত্তর আপনি দিতে পারবেন না নফসের খায়েশাত ব্যাতীতযেমনটা পারবেন না ওষুধের গুনাগুন যাচাইয়ের জন্য নিজের বাড়িতে ল্যাব তৈরী করতে বরং অন্ধভাবে আপনাকে এন্টাসিড, প্যরাসিটামল, ক্লোফেনাক, পেন্টনিক্স খেতে হবেই যখন প্রয়জন পড়বে

কিডনীর অপারেশন করতে আপনাকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের শরনাপন্ন হতেই হবেকারন তিনি এই লাইনে বিশেষজ্ঞ আর আপনি নেহায়েত অজ্ঞআর ফিক্বহী এসব মাসায়ালার ক্ষেত্রেও আপনার একজন ইমামের মাযহাব অনুসরণ করা ছাড়া আর কোন রাস্তা নেইকারন মাযহাবের ইমামগন মাসায়াল বিষয়ে পরিপূর্ণ জ্ঞানী এবং আমাদের সুবিধা জন্য প্রতিটা মাসায়ালা পৃথক পৃথক ভাবে সুবিন্যস্ত ভাবে সাজিয়ে রেখে গেছেনযার প্রতিটিও কুরআন শরীফ হাদীস শরীফ থেকে গবেষনালব্ধ


এখন যদি মাযহাব না মেনে নিজেই ইস্তেহাদ করতে যান তবে, আপনি ডাক্তারের মতামত অনুসারে কিডনীর অপারেশন না করিয়ে কিডনীর ব্যাথা সইতে সইতে ধুঁকতে ধুঁকতে মরেন... কার কি যায় আসে ??


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: