9.02.2016

ধোঁকাবাজ পঙ্কজ গুপ্তের জন্য ত্রিশ হাজার মুসলমান পরিবারকে গৃহহীন করছে প্রশাসন ভিডিও সহ


দানবীর রাগীব আলিকে চক্রান্তে ফাঁসানো পঙ্কজগুপ্ত ৭১ এ মুসলিম হয়ে আবার হিন্দু হয়। গতকালকে খবর এসেছে তারাপুরের ৭১৫টি স্থাপনা পঙ্কজগুপ্তকে বুঝিয়ে দিয়েছে প্রশাসন। ভবিষ্যতে আরো স্থাপনা উচ্ছেদ করে সেগুলোও বুঝিয়ে দেওয়া হবে পঙ্কজগুপ্তকে। (http://goo.gl/AxW5cP)

এই ভিডিওটির রাগীব আলী ও পঙ্কজগুপ্তের মধ্যে সকল ঘটনা খোলাখুলি নিরপেক্ষভাবে আলোচনা করেছেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও পঙ্কজের বাল্যকালের বন্ধু ফজলুর রহমান খান। ভিডিও শুনলে জানতে পারবেন-

১) পঙ্কজগুপ্ত ১৯৭১ সালে মুসলমান হয়, তার নাম হয় আমানত আলী,
২) পরবর্তীতে পঙ্কজ মা-বোনের চাপে আবার হিন্দু ধর্মে ফিরে যায়,
৩) পঙ্কজ নিজেই জমি বিক্রি করতে উদ্দত হয়, এবং ১ কোটি রুপি মূল্য হাকে,
৪) রাগীব আলী জোর করে নয়, বরং পঙ্কজকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসে,
৫) পঙ্কজ ১ কোটি বুঝে নিয়েই জমি হস্তান্তর করে,
৬) রাগীব আলীর কাছে বিক্রির আগেই অনেক জমি পঙ্কজ নিজেই বিক্রি করে যায়,
৭) রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজের ভিত্তিপ্রস্থ স্থাপন করে তৎকালীন জাতীয় সংসদের স্পিকার হুমায়ুন রশীদ,
৮) রাগীব রাবেয়া মেডিকেল স্থাপনের পর জমির দাম ১০০ গুন বেড়ে যায়,
৯) জমির দাম বৃদ্ধির পর লোভে পরে জমির মালিকানা ফের দাবি করে বসে পঙ্কজ,
১০) পঙ্কজ এখন পুরো ঘটনাই অস্বীকার করছে, বলছে- সে কিছু জানেই না।
১১) মিথ্যাবাদী পঙ্কজের কারণে জমি ক্রয় বিক্রির পরও ৩০ হাজার মুসলমানকে গৃহহীন করছে প্রশাসন,

১২) স্থানীয় মুসলমানরা বলছে- তাদের জমি যেন কেড়ে নেয়া না হয়। যদি জমি কেড়ে নিতে হয়, তবে তার আগেই যেন তাদের স্বপরিবারে মেরে ফেলা হয়।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: