9.21.2016

মুসলমানদের টাকার চাল হিন্দুদের মূর্তি পূজায় দেয়া কি বিধিসম্মত ? ইসলাম সম্মত?

আমার এক ফেসবুক বন্ধু জানালেন, তিনি কয়েকবছর আগে বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের একটি জেলায় ভ্রমণে গিয়েছিলেন। সেখানে দেখা করতে গিয়েছিলেন এক ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে। চেয়ারম্যানের রূমে ঢুকতেই চেয়ারম্যান বললো- ভাই আজকে কথা বলার টাইম নাই, পরে কথা বলবো।
ঐ ব্যক্তি বললো, “কেন ? কোন ব্যস্ততা?”
উত্তরে চেয়ারম্যান বললো-না, কয়েকদিন পর দূর্গা পূজা তো তাই ব্যস্ততা। এখনও অনেক মণ্ডপের বরাদ্দ বিলি করা হয় নাই। সরকারের তরফ থেকে নির্দেশ, কোন মণ্ডপ যেন খালি না যায়, প্রত্যেক মণ্ডপে ৫০০ কেজি করে চাল দিতে হয়। কেউ না নিতে চাইলে জোর করে দেই। জোর করে দেয়াই সরকারের নির্দেশ।

সরকারের নির্দেশ, কেউ ৫০০ কেজি চাল নিতে না চাইলে জোর করে দিতে হবে। এভাবে করে একটি দুটি নয় প্রায় ২৮ হাজার মণ্ডপে চাল দেয়া হবে। এই সুযোগে অনেক হিন্দু দোকান থেকে ৫০০ টাকা দিয়ে মূর্তি কিনে ঘরের নামনে ঝুলিয়ে মণ্ডপ বানিয়ে ফেলছে, আর লাভ করছে ৫০০ কেজি চাল বা ২৫ হাজার টাকা। অনেক হিন্দু খাতা কলমেও মণ্ডপ দেখিয়েও লক্ষ লক্ষ টাকা লুটপাট করছে । গত বছর এনটিভির খবরে আসে- মণ্ডপ বেশি দেখিয়ে টাকা লুটে নিচ্ছে হিন্দুরা (http://archive.is/VwKyU)

কিন্তু কথা হচ্ছে, এই যে টাকাগুলো দেয়া হচ্ছে, এগুলো কার টাকা ? সরকারের বাবার?? নাকি জনগণের কষ্টাজর্তিত অর্থ, ট্যাক্সের নামে যা জনগণের থেকে নানান কায়দায় শোষণ করা হয়েছে। আচ্ছা মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসবে কি এভাবে দরিদ্র মুসলমানদের অর্থ সাহায্য দেয়া হয় ?? ঈদের জামা কিনে দেয়া হয়, গরু জবাই করে খাওয়ানো হয় ??

অনেকে বলতে পারেন, ট্যাক্সের টাকা বলতে মুসলমানদের টাকা বলছেন কেন ? হিন্দুরা কি বাংলাদেশে থাকে না ?? আসলে আমি বুঝেই বলছি। বাংলাদেশের হিন্দুরা তো বাংলাদেশকে নিজের দেশই মনে করে না, ট্যাক্স দেয়া তো অনেক পরের বিষয়। এদের এক পা সব সময় ভারত থাকে, ভারতে টাকা জমায়, ভারতে সম্পত্তি করে, বাংলাদেশ এদের দ্বারা কি সুবিধা লাভ করবে ?? এমনকি বাংলাদেশেও নানান কায়দায় তারা ট্যাক্স মাফ করে। এইতো কিছুদিন আগে প্রধানমন্ত্রী জন্মাষ্টমী উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে ঘোষণা দিয়েছে- হিন্দুরা বিনা শুল্কে বিদেশ থেকে মূর্তি আনতে পারবে। (https://goo.gl/8Bz2iW)

তাহলে হিন্দুদের ট্যাক্সের টাকা থাকলো কোথায় ??

আচ্ছা, ইসলাম কি বলে ? ‍মুসলমানদের টাকা মূর্তি পূজায় দেয়া কি বিধিসম্মত ? আমি যতদূর জানি, ইসলামে মুসলমানদের টাকা মূর্তি পূজায় দেয়া বিধিসম্মত নয়। অথচ বর্তমানে বাংলাদেশে ঠিক সেই কাজটা হচ্ছে। মণ্ডপগুলোতে কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে. মন্দির নির্মাণ করতে ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে। মসজিদ ভিত্তিক গণশিক্ষার কার্যক্রমের সাইনবোর্ড তুলে একই যায়গায় উঠানো হচ্ছে মন্দির ভিত্তিক গণশিক্ষা কার্যক্রম।

মজার ব্যাপার কি জানেন, যে বাংলাদেশে হিন্দুরা বিনাশুল্কে ‍মূর্তি আনতে পারে, সে বাংলাদেশে মুসলমানদের হজ্জে যাওয়ার জন্য ধর্মমন্ত্রীর হিন্দু এপিএসর কাছে ঘুষ দিতে হয়। ধর্মমন্ত্রী হিন্দু এপি্এস শৈলেন মুসলমান হাজীদের দেয়া টাকা লুটপাট করে ভারতে নিয়ে জমায়, ভারতে সম্পত্তির পাহাড় বানায়। (http://archive.is/r9xAk, http://archive.is/VXv2s)

হায়রে দুঃখ, আপনি কেন যে বাংলাদেশী মুসলমান হইলেন....


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: