9.11.2016

গরুর গোশত খাওয়ার কারনে শাস্তি দিতে আমাদের ধর্ষণ করা হয়েছে বললেন হরিয়ানার মুসলিম ধর্ষিতারা



ভারতের হারিয়ানার মীরাটের দুই মহিলার ধর্ষণের ঘটনার পর আজ সামনে এলো 'নতুন অভিযোগ'ধর্ষিতাদের মধ্যে একজন জানালেন, ধর্ষকদের মধ্যে একজন বলেছিলো গরুর গোশত খাওয়ার কারনে তাঁদের ধর্ষণ করা হয়েছিল। সমাজকর্মী শবনম হাসমিকে পাশে নিয়ে দিল্লিতে ওই ধর্ষিতার বক্তব্য, "ওরা জানতে চেয়েছিলো আমরা গরুর গোশত খাই কিনা। আমরা বলেছিলাম আমরা খাই না, কিন্তু ওরা বলল, ওই কারণেই (আমাদের শাস্তি দেওয়া হচ্ছে)।"


পুলিশ জানিয়েছে এই 'নতুন অভিযোগের' কথা এর আগে ওই মহিলারা বা তাঁদের পরিবারের তরফে কখনই জানানো হয়নি।  প্রসঙ্গত, মীরাটে গত ২৪শে অগস্ট, বছর কুড়ির এক যুবতী ও তাঁর চোদ্দ বছর বয়সী এক তুতো বোনকে বাড়ির মধ্যেই যৌন নিগ্রহ করা হয়। নিগ্রহের সময় ওই যুবতীর চাচা ও চাচিকে বেঁধে রেখে মারধোরও করা হয়েছিল বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় হরিয়ানা পুলিস চার অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে ইতিমধ্যেই। ধৃতদের প্রত্যেকের বয়সই তিরিশের কোঠায়। পুলিশ প্রথমে শুধু ধর্ষণ ও বাড়িতে জোর করে ঢোকার অভিযোগে অভিযুক্ত করেছিলো, কিন্তু তারপরে স্থানীয় মানুষের প্রতিবাদের ফলে  খুনের অভিযোগও নথিবদ্ধ করা হয়।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: