9.08.2016

সিলেটে মুসলমানদের উপর ইসকনের হামলার সপ্তাহ না পেরুতেই ফেসবুকের প্রতিবাদি ঈমাম খুন?


সিলেটের ওসমানীনগরে মসজিদ থেকে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ফেসবুকের আলোচিত ইমাম ও প্রতিবাদি ইসলামপন্থি লেখক মাওলানা আব্দুর রহমান মোগলাবাজারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এসময় উনার হাত-পা বাঁধা ছিলো। বৃহস্পতিবার সকালে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

মাওলানা আব্দুর রহমান উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ মোবারকপুর (আন্দারকোনা) জামে মসজিদের সম্মানিত ইমাম ছিলেন। তিনি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার মোগলাবাজার থানার সোনাপুর গ্রামের আব্দুল বারির ছেলে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, ভোরে ফজরের সময় মুসল্লিরা স্থানীয় আন্দারকোনা মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে ইমামের ঘরের দরজা খোলা দেখতে পান। পরে কয়েকজন মুসল্লি ঘরে ঢুকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ইমামকে ঝুলতে দেখেন। খবর পেয়ে ওসমানীনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সকাল ১০টার দিকে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসে। নিহত ইমামের বড় ভাই জইন উদ্দিন জানান, কে বা কারা তাকে হত্যা করছে তারা বলতে পারছেন না। তার সঙ্গে কারো বিরোধ ছিলো কি না সে বিষয়েও কিছু বলতে পারছেন না তিনি কিন্তু তিনি অনলাইনে অন্যায়ের বিপক্ষে খুব লিখালিখি করতেন।

জানতে চাইলে ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল আউয়াল চৌধুরী বলেন, নিহত ইমামের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। হাত-পা বেঁধে হত্যার পর দুর্বৃত্তরা লাশ ঝুলিয়ে রেখে গেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তদন্তের পর হত্যার প্রকৃত কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নিহত ইমাম অনলাইনের খুবই পরিচিত মুখ, বাতিলের বিরুদ্ধে সোচ্চার একজন আহলে ইলিম। ফেসবুকে উনার আইডির  নাম Abdur Rahman moglabazari । গতরাতে অজ্ঞাত কিছু সন্ত্রাসী তাঁকে তার মসজিদের হুজরায় হাত পা বেঁধে হত্যা করে ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রাখে ! অনেকে ধারনা করছেন যে গতো জুম্মাবারে সিলেটে মুসল্লিদের উপর ইসকনের গুলি বর্ষণ এবং হামলার প্রতিবাদে উনি খুব সক্রিয় ছিলেন ফেসবুকে এবং এইতাও হত্যার একটি কারন হতে পারে। উনার দেওয়া সিলেট নিয়ে শেষ স্ট্যাটাস নিম্নরূপঃ

হজরত শাহ জালাল রহঃ এর উত্তরসুরীরা কই?

যারা কথায় কথায় বলে আমরা শাহ জাললের উত্তরসুরী তারা আজ কই? গত শক্র বারে সিলেট মধু শহিদ মসজিদে পুলিশের সহায়তায় হিন্দু মালুরা হামলা করে মুসল্লি সহ মসজিদ আহত করল কিন্তু এখনো মুসলমানের ঘুম ভাঙ্গলা না। না তাদের ঈমানে মরচিকায় ধরছে।

আজ যদি শায়খে আব্দুল্লাহ হরিপুরী ও শায়খে গহরপুরী রহঃ থাকতেন তাহলে পুলিশ সহ মালুরা পালানোর পথ পেতনা। তারাই ছিল শাহ জালালের উত্তরসুরী। বাকিরা হল জিলাপির উত্তরসুরী।

পোষ্ট লিঙ্কঃ- http://goo.gl/dcW7Vr আর্কাইভ লিঙ্কঃ- http://archive.is/he5N4

আমার মন্তব্যঃ দেশের কোনো মন্দিরের লোক, অথবা যেকোনো হিন্দু লোক মারা গেলেই দালাল মিডিয়া নিউজ এর উপর নিউ করে প্রশাসন হয় সক্রিয় বিচার বিভাগ নড়েচড়ে উঠে এবং তাদের বিচার হয় । কিন্তু ধারাবাহিক ভাবে একের পর এক ইমাম মুয়াজ্জিন খুন হচ্ছেন । এসবের কি বিচার হবেনা ? দেশের আলিম সমাজ ৫০/৬০ কিলোমিটার দীর্ঘ লাইনের মানববন্ধন করেন সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ! নিজেদের লোক মসজিদ মাদ্রাসার ইমাম মুয়াজ্জিনরা নিরবে হত্যার শিকার হন এসবের জন্য কি কিছু করবেনা এদেশের আলিম সমাজ?

অনলাইনের আলিম উলামা মাদ্রাসা সংশ্লিষ্ট ফ্রেন্ড লিস্টের সকল বন্ধুবান্ধবদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি বিশেষ করে সিলেটের আলিম উলামাদের । আপনারা এই নিরীহ মাওলানা আব্দুর রাহমানের পাশে কি দাঁড়াবেন ? না কি নিজেরাও নিরবে এরকম গুপ্ত হত্যার শিকারের অপেক্ষা করবেন ?

মাওলানা আব্দুর রহমান হত্যার তীব্র নিন্দা জানাই । সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির ব্যবস্তা গ্রহন করা হোক ।

নিউজটি শেয়ার করে সিলেটী আলিম উলামাদের নজরে দিন । একটি সমুচিত বিচারের ব্যবস্তা নিন ।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: