10.31.2016

পবিত্র কাবা শরীফে শিবের মূর্তিঃ বর্তমানে উগ্রহিন্দুত্ববাদীদের একটি জঘন্য প্রচারণার অংশ

সম্প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগরে কাবা ঘরের ছবির উপর শিবের ছবি স্থাপন করে পোস্ট করায় জনগণ ক্ষিপ্ত হয়েছে। অনেকে বিষয়টি হিন্দুরা করেছে কি না সেটা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে- বর্তমান হিন্দুত্ববাদীদের একটি জঘন্য প্রচার হচ্ছে- পবিত্র কাবা শরীফ হিন্দুদের ঘর, হিন্দুদের শিবের মন্দির। এই নাকি শেষ নবী সাইয়্যিদুল মুরসালিন ইমামুল মুরসালিন খাতামান্নাবীঈন নূরে মুজাসসাম হাবিবুল্লাহ হুযুরপাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি দখল করেছে নাউযুবিল্লাহ!!

এই সম্পর্কে আপনি নিজেই যদি বিস্তারিত জানতে চান, তবে গুগলে Kaaba Temple of Shiva কিংবা Shivling Inside Kaaba লিখে সার্চ দিলে অনেক ওয়েবসাইট পাবেন, ছবি পাবেন, যেখানে হিন্দুরা প্রকোশ্যে দাবি করছে- পবিত্র কাবা শরীফ হচ্ছে হিন্দুদের শিব মন্দির, এমনকি অনেকে প্রচার করছে- পবিত্র কাবা শরীফের ভেতর শিবলিঙ্গ লুকানো আছে, আবার কেউ পবিত হাজারে আসওয়াদ পাথর মুবারক কে শিবলিঙ্গ বলে প্রচার চালাচ্ছে। কেউ কেউ পবিত্র মাকামে ইব্রাহীম আলাইহিস সালাম উনাকে শিবলিঙ্গ বলছে, কেউবা শয়তানের পাথর মারা যায়গাটাকেও শিবলিঙ্গ বলে দাবি করছে। হিন্দুত্ববাদী দল আরএসএস বিদ্যাভারতীনামে স্কুলের এক বিরাট নেটওয়ার্ক -এর মাধ্যমে এসব বিকৃত শিক্ষার প্রচার করছে। অঞ্চলভেদে বিদ্যাভারতী স্কুলগুলোর জন্য বিভিন্ন নাম রাখা হয়েছে। এসব নামের মধ্যে রয়েছে বিদ্যাভারতী, জ্ঞানভারতী, সরস্বতী মন্দির, গীতা নিকেতন, বিবেকানন্দ বিদ্যালয় ইত্যাদি।

এ সম্পর্কে হিন্দুদের অনেক ওয়েবসাইট আছে, সেগুলো দেখতে পারেন-
১) https://www.pinterest.com/jaivinsh/hidden-truth-behindkaaba/
২) http://bit.ly/2f3frVr,
৩) http://bit.ly/2eJWOre
৪) https://youtu.be/aAy8O-fo2H8

আসলে সবকিছুর মধ্যে লিঙ্গ খুজে পাওয়া হিন্দুদের নতুন কোন অভ্যাস নয়, পুরোনো অভ্যাস। ওরা পছন্দমত যায়গাতে লিঙ্গ পেয়ে যায়। যেখানে খুশি যেখানকেই মন্দির বলে দাবি করে বসে। যেমন- বাবরী মসজিদ ছিলো মন্দির, তাজমহল হিন্দুদের মন্দির, ভ্যাটিকান সিটি হিন্দুদের মন্দির ছিলো, এমন কোন আজগুবি বক্তব্য নেই যে হিন্দুরা দেয় নাই। আসলে তাদের কাজ হচ্ছে পায়ে পড়া দিয়ে ঝগড়া করা, সাম্প্রদায়িকতা তৈরী করা।


তাই আশা করছি, বি-বাড়িয়ার রসরাজ দাস অনিচ্ছাকৃত ভুল করেছে’, বা ভুলটা শুধু রসরাজ দাসেরএমন মায়া কান্না কেউ কাদবেন না।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: