11.21.2016

কার ভূলে আজকে মুসলমানরা সম্পূর্ণ পৃথিবীতে মার খাচ্ছে হচ্ছে চরম নির্যাতিত?

ISIS, আল-কায়দা, তালেবান, বোকা হারাম নামক ইহুদীদের তৈরি চরমপন্থী নামধারী মুসলিম সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী! স্বঘোষিত মুসলমানদের ভাই ব্রাদাররা নাকি অমুসলিম দুষমনদের মারে  মুসলমানদের শত্রু যার উসিলা ধরে মানবতার শত্রু এই(ISIS, আল-কায়দা, তালেবান, বোকা হারাম) সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীগুলোকে ধ্বংস করার জন্য পৃথিবী জুড়ে যুদ্ধের ডাক দেওয়া হয়েছেচিরশত্রু আমেরিকা ও তার দোসররা এবং রাশিয়া একই ছাতার নিচে একত্রিত হয়ে ফিলিস্তিন, আফগানিস্তান, ইরাক, সিরিয়া, হয়ে ইয়েমেন পর্যন্ত ধ্বংস যজ্ঞ চালায়

তার দ্বারা এই সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীগুলির কতটুকু ক্ষতি হয়েছে জানা নেই কিন্তু লাখো লাখো নীরিহ মুসলমানের জ্বান, মাল ঘর-বাড়ী ধ্বংস করে ভিটে-মাটি ছাড়া করতে পেরেছে যারা মরে গেছে তারা বেঁচে গেছে যারা বেঁচে আছে তারা মৃত্যু কামনা করছে খোলা আকাশের নিচে, নয়তো শরনার্থী শিবিরে তিল তিল করে মৃত্যু যন্ত্রণা ভোগ করছে কিশোরী থেকে যুবতী মেয়েদের যৌবন নিয়ে চলছে ছিনিমিনিশিশু, যুবক, বৃদ্ধদের সামান্য মুল্যে দাসত্ব বৃত্তি করতে বাধ্য করা হচ্ছে সৌগরবে চলছে উন্নত বিশ্ব গড়ার পরিকল্পনামুসলমানদের রক্ত, গোশত, হাড় দিয়ে মজবুত ভীত দেওয়া হচ্ছেখুব ভালো সন্ত্রাসী মুসলমানদের এই পরিনতি হওয়াই উচিত!!!!

কিন্তু সেই মুসলমানকে যখন ফিলিস্তিন, রাশিয়া, চীন সর্বপোরি মায়ানমারেও যখন অমুসলিম চরমপন্থী সন্ত্রাসীরা রাষ্ট্রশক্তির সহায়তা নিয়ে কচু কাটা করে রক্ত নিয়ে নপাক হোলি খেলে তখন কারোও কোনো মাথা ব্যাথা হয় না বরং শান্তির নোবেল পাওয়ার প্রবল দাবীদার হয়ে ওঠে মিয়ানমারের বিশ্ব নন্দিত নেত্রি শান্তির দুত আং সান সু চি কে দেখলেই দুনিয়ার মানুষের চক্ষু শীতল হয়!

বিশ্বশান্তির প্রবক্তাদের কি মহিমা! মুসলমান নামধারী হলে হয় সন্ত্রাসী অমুসলিম নামধারি হলে শান্তির পুজারী

ওয়াহ গ্রেট! সন্ত্রাসবাদ ও সন্ত্রাসবাদীর সংঙ্গা শুনে আমরা বিমোহিত হইএকদিকে শুধু মুসলিম আর অন্যদিকে জোটবদ্ধ অমুসলিম শক্তি সেখানে নেই কোনো মত পার্থক্য ওদের একটাই লক্ষ্য, একটাই উদ্দেশ্য মুসলমানদের বিনাশ সাধনআর অন্যদিকে ইহুদি খ্রিষ্টানরা খুব সহজেই ১৪০০ বছর আগে শুরু হওয়া কোরআন সুন্নাহর অনুসারী সুন্নি মুসলিম দের আক্বিদা নষ্ট করে আরব, অনারব এর নামে শত দল উপোদলে বিভক্ত করে তৈরি করেছে শিয়া, সালাফি, ওয়াহাবি, দেওবন্দি, কাদিয়ানী, আর সবশেষে লা মাজহাবী তথা আহলে হাদিস ফেরকাঘরের কুন্দোলকে বাজারে নিয়ে এসে করাচ্ছে গন্ডগোলযার পূর্ণমাত্রায় লাভ ওঠাচ্ছে ইসলামের চিরো দুষমন তথা মুসলিম বিদ্বেষি, খৃষ্টান, ইহুদি, কট্টর বৌদ্ধ, চরমপন্থী হিন্দুত্ববাদী, সমাজবাদী ও পুঁজিবাদী সহ সমস্ত শক্তি

শিক্ষা-দীক্ষা, শীল্প-বিজ্ঞানে পিছিয়ে থাকা মুসলমান তাই পড়ে পড়ে মার খায়তাদের হয়ে কান্নারও লোক পাওয়া যায় নাদিশেহারা মুসলিম; না নিজের হতে পেরেছে না অন্যের কাজে লাগতে পারছে

খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার বিধান আল কোরাআনকে ছেড়ে দিয়ে না পেরেছে আধুনিক হতে না পেরেছে মুসলমান হতেদুনিয়াতেও লাঞ্ছিত, পরকালেও লাঞ্ছিত হতে হবেদুনিয়ার প্রেমে পড়ে দ্বীন ও দুনিয়া দুই ই হারিয়ে গেছে তারা ভুলে গেছে বিশ্ব মুসলিম একটাই দেহএক উম্মাহ একটাই বডি এই উপলব্ধি তাদের মধ্যে সঞ্চারিত না করতে পারলে মুক্তি নেই মুক্তি নেই কুফুরিতন্ত্র নামক সকল রাজনৈতিক তন্ত্রমন্ত্র ছেড়ে খেলাফতের ছায়াতলে আসতে জামানার ইমামের ছায়াতলে আশ্রয় না নিলে।

যে জাতি নিজ অবস্থার পরিবর্তন করার জন্য সচেষ্ট হয়না খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তনি সে জাতির অবস্থার পরিবর্তন ঘটান না

খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এই বানীকে সামনে রেখে সব ভেদাভেদ ভুলি একতাবদ্ধ হয়ে আসুন খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার রজ্জু আল কোরানকে এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সুন্নাহ কে অনুসরন করে অলি আল্লাহ উনাদের চলিত পথে চলে উনাদের আমল আক্বিদাকে শক্ত করে আঁকড়ে ধরিতবেই আমরা হয়তো আমাদের গৌরব পুনরুদ্ধার করতে পারবো হতে পারবো বিশ্বজয়ী উম্মত যারা উম্মতে সাইয়্যিদুল মুরসালিন ইমামুল মুরসালিন খতামান নাবীঈন নূরে মুজাসসাম হাবিবুল্লাহ হুযুরপাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার

সংগৃহীত (সূত্রঃ) এবং অনেকটা সংশোধিত।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: