11.04.2016

বাংলাদেশে হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক অস্থিতিশীলতা তৈরী হওয়ার মূলে কে জেনে নিন!!

বর্তমানে বাংলাদেশে হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক অস্থিতিশীলতা তৈরী হওয়ার জন্য যতগুলো ফেসবুক আইডি দায়ী তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে উত্তম কুমার দাসনামক একটা ফেসবুক আইডি (https://www.facebook.com/uttam.das.14606)। কিছুদিন আগে মৌলভীবাজার জেলায় মিল্টন কুমার দাস নামক এক হিন্দু ইসলাম অবমাননার জন্য গ্রেফতার হয় (http://bit.ly/2fIcYne), সেই মিল্টন কুমার দাস এই উত্তম কুমার দাস নামক আইডির ইসলাম অবমানকর কন্টেন্ট শেয়ার করে ধরা খায়। উত্তম কুমার নামক সেই কুখ্যাত আইডির বন্ধু লিস্টে বাংলাদেশ মাইনোরিটি ওয়াচের প্রেসিডেন্ট সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি রবীন্দ্র ঘোষ এবং বাংলাদেশ হিন্দু মহাজোট নামক একটি আইডিও রয়েছে।

বর্তমানে শাহরিয়ার কবীর, সুলতানা কামাল, সময়টিভিসহ তাবৎ ইসলাম বিদ্বেষী তাবৎ ইসলাম বিদ্বেষী গং হ্যান-ত্যান করে বুঝানোর চেষ্টা করছে রসুরাজ অবমাননার সেই ছবি পোস্ট করেনি। তার পক্ষে নাকি ঐ ছবি ফটোশপ করে বানানোও সম্ভব ছিলো না। অথচ রসুরাজ কোন ছবি তৈরী করেনি, বরং ওয়াশিম.বিডি (https://www.facebook.com/washim.bd.31/) নামক একটি ইসকনী আইডির প্রচারিত ছবিই সে কপি করে শেয়ার করেছিলো। যে রসুরাজের ফেসবুক আইডি আছে, সে একটা ছবি কপি করে পোস্ট আগেও করেছে, আর নতুন করে করতে পারবে না, এমন তো নেই।

এখন বলতে পারেন- এগুলো সব ফেইক, হিন্দু ফাসানোর জন্য। কিন্তু এগুলোও মিথ্যা অপপ্রচার। এই দোষ শুধু রসুরাজের নয়, বরং পুরো হিন্দু সম্প্রদায়ের। কারণ হিন্দুরা বহুদিন ধরে প্রচার করে আসছে মুসলমানদের পবিত্র কাবা শরীফ হচ্ছেন শিব মন্দির, যা সম্মানিত মুসলমানরা দখল করেছেন নাউযুবিল্লাহ।

এই অপপ্রচার প্রথম শুরু করে ভারতের হিন্দু নেতা রবি শঙ্কর (https://youtu.be/myFxkIoRWDk)। এ সম্পর্কে হিন্দুদের অনেক ওয়েবসাইট আছে, সেগুলো দেখতে পারেন-
১) https://youtu.be/6p1T79AdyCg
২) http://bit.ly/2f3frVr,
৩) http://bit.ly/2eJWOre
৪) https://youtu.be/aAy8O-fo2H8
৫)http://bit.ly/2fp3nxY
৬)http://bit.ly/2eJWOre
৭) https://www.pinterest.com/jaivinsh/hidden-truth-behindkaaba/


তাই রসরাজ দোষ করেছে কিংবা রসরাজ নিরাপরাধ এগুলো বলার আসলে কোনো অবস্থাই হিন্দুদের নেই। সকল হিন্দুই ধর্মীয় অবমানানর সাথে জড়িত এবং এগুলো তারা করছে সম্মানিত মুসলমান বিরোধী এক গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে। এখন মুসলমানদের সামনে দুটি রাস্তা খোলা আছে- হয় তারা প্রকাশ্যে হিন্দুদের দ্বারা ধর্মীয় অবমাননা দেখে মুখ বুজে সহ্য করে ধ্বংস হবে, অথবা তার প্রতিবাদ করবে। দেখা যাক তবে কি হয়।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: