12.27.2016

কেয়ামতের আলামত সম্পর্কে কিছু কথা ও আমাদের করনীয়

কিয়ামত সংগঠিত হওয়ার পূর্বে কিছু কিছু আলামত পরিলক্ষিত হবে তবে কিয়ামতের সর্ব প্রথম আলামত হচ্ছেন সাইয়্যিদুল মুরসালিন ইমামুল মুরসালিন নূরে মুজাসসাম হাবিবুল্লাহ হুযুরপাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আগমনকারণ তিনি হলেন সর্ব শেষ নবী ও রাসুলতারপর কিয়ামত পর্যন্ত আর কোন নবী/রাসুল আলাইহিমুস সালাম আসবেন নাসাইয়্যিদুল মুরসালিন ইমামুল মুরসালিন নূরে মুজাসসাম হাবিবুল্লাহ হুযুরপাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এ ব্যাপারে বলেনআমি এবং কিয়ামত একসাথে প্রেরিত হয়েছিএ কথা বলে সাইয়্যিদুল মুরসালিন ইমামুল মুরসালিন নূরে মুজাসসাম হাবিবুল্লাহ হুযুরপাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার হাতের শাহাদাত আঙ্গুল এবং মধ্যমা আঙ্গুল একত্রিত করে দেখালেন। [মুসলিম শরীফ]

খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি বলেন,“ কিয়ামত নিকটবর্তী হয়ে গেছে এবং চন্দ্র দ্বিখন্ডিত হয়েছে” [পবিত্র সূরা কামার শরীফঃ আয়াত শরীফ ১]  কিয়ামতের সময় ফেতনা ফাসাদ বেড়ে যাবেমানুষ বিভিন্ন দলে বিভক্ত হবেরক্তপাত করবে।  সাইয়্যিদুল মুরসালিন ইমামুল মুরসালিন নূরে মুজাসসাম হাবিবুল্লাহ হুযুরপাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেনপ্রথম যুগের মুমিনদেরকে ফিতনা থেকে হেফাজত রাখা হয়েছেআখেরি যামানায় এই ঊম্মতকে বিভিন্ন ধরণের ফিতনায় ও বিপদে ফেলে পরীক্ষা করা হবে। [কিতাবুল ফিতান মুসলিম শরীফ]

ঘন ঘন ভূমিকম্প কিয়ামতের আরেকটি বড় আলামতঃ

সাইয়্যিদুল মুরসালিন ইমামুল মুরসালিন নূরে মুজাসসাম হাবিবুল্লাহ হুযুরপাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উম্মতদেরকে কিয়ামত নিকটবর্তী হওয়ার কতগুলো আলামত জানিয়ে দিয়ে গেছেনযখন কিয়ামত খুবই কাছে এসে যাবে তখন নিম্নোক্ত আলামত গুলো ঘটবেঃ

মানুষ ব্যাপকহারে ধর্মবিমুখ হবে

বিভিন্ন রকমের পার্থিব আনন্দ এবং রং তামাশায় মেতে থাকবে

নাচ-গানে মানুষ মগ্ন থাকবে

মসজিদে বসে দুনিয়াদারীর আলাপ-আলোচনায় লিপ্ত হবে

সমাজে ও রাষ্ট্রে অযোগ্য লোক এবং মহিলা নেতৃত্ব শুরু হবে

মানুষের মধ্যে ভক্তি, শ্রদ্ধা, স্নেহ ভালবাসা কমে যাবে

ঘন ঘন ভূমিকম্প হতে থাকবে

সব দেশের আবহাওয়ায় ব্যাপক পরিবর্তন দেখা দিবে

অত্যাধিক শিলা-বৃষ্টি হবে

১০বৃষ্টির সাথে বড় বড় পাথর বর্ষিত হবে

১১মানুষের রূপ পরিবর্তিত হয়ে পুরুষ স্ত্রীলোকের ন্যায় এবং স্ত্রীলোক পুরুষের রূপ ধারন করবে

কিয়ামতের সময় যখন আরও নিকটবর্তী হবে তখন সাইয়্যিদুল আউলিয়া সাইয়্যিদুনা হয্রত ইমাম মাহদী আলাইহিস সালাম উনার আগমন, নিকৃষ্ট দাজ্জালের আর্বিভাব, হযরত ঈসা রুহুউল্লাহ আলাইহিস সালাম উনার আকাশ থেকে পৃথিবীতে অবতরণ, ইয়াজুজ-মাজুজের উৎপাত, পশ্চিম দিক হতে সূর্য উদয়, পবিত্র আল কুরআনের অক্ষর বিলোপ, তাওবার দরজা বন্ধ, দুনিয়া হতে ইমানদারের বিলুপ্তি ইত্যাদি দেখা দেবেতার মানে দেখা যাচ্ছে শুধুমাত্র নীচের এই কয়েকটি আলামত ছাড়া বাকি সব গুলোই ইতিমধ্যে ঘটে গিয়েছেসুতরাং কিয়ামতের আর খুব একটা বেশী দেরি নেই, এটি অনেক নিকটবর্তী হয়ে গিয়েছে


এখনো সময় আছে তওবা করে, সকল গুনাহ ত্যাগ করে খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার পথে আসার আহ্বান সবাইকেতওবার দরজা বন্ধ হয়ে গেলে কিন্তু আফসোসের শেষ থাকবে নাসুতরাং এক্ষনই খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার কাছে তওবা করোজীবনে যা পাপ করেছো ভুল করেছো, খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার কাছে ক্ষমা চেয়ে এখন থেকেই সকল পাপ বর্জন করে নিয়মিত পাঁচ ওয়াক্ত নামায আদায় করো এবং সবথেকে বর আমল পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ প্রতি মুহূর্তে পালন করে জান্নাত নিশ্চিত করুন কারন মহান আল্লাহ পাক তিনি বলেনঃ (يايها الناس قد جاءتكم موعظة من ربكم وشفاء لما فى الصدور وهدى ورحمة للمؤمنين. قل بفضل الله وبرحمته فبذالك فليفرحوا هو خير مما يجمعون) হে মানবজাতি, তোমাদের নিকট মহান আল্লাহ পাক উনার তরফ থেকে নসীহতকারী, অন্তরের শিফা দানকারী এবং মুমিনদের জন্য রহমত ও হিদায়েত দানকারী আগমন করেছেনসুতরাং তোমরা এই ফযল ও রহমত(রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) পাওয়ার কারনে খুশি(ঈদ) প্রকাশ করো, যা তোমাদের সঞ্চিত সমস্ত আমল থেকে শ্রেষ্ঠ ও উত্তম হবে। (সূরা ইউনূস শরীফঃ ৫৭, ৫৮ নং আয়াত শরীফ)। মহান আল্লাহ পাক আমাদের সঠিক বুঝ দান করুন, আমাদের সমস্থ গুমরাহি থেকে হেফাজত করুন আমাদের সকলকে ক্ষমা করুন এবং মৃত্যুর সময় ঈমান এবং আমল নিয়ে উনার কাছে যাওয়ার তৌফিক দান করুনআমিন


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: