1.06.2017

William Gomes নামের এক নাস্তিক আজকে আল্লাহ্‌ রাসুলকে নিয়ে চরম কটূক্তি করলো কিন্তু আমরা নিরব

২০০৭ থেকে ২০১৭ আমি ব্লগিং, টুইটিং, ফেসবুকিং করে অনেক কিছুই পরিবর্তন করেছি অনেক ফল ও পেয়েছি তবে শুধু পারিনি এদেশের ঘুমন্ত মুসলমানদের ঈমান কে জাগ্রত করতে

অতিব দুক্ষের বিষয় যে আজকে আবারো William Gomes নামের এক নতুন নাস্তিক আমার কাছে আবিষ্কৃত হয়েছে যে তার ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ্‌ পাক ও রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে গালিগালাজ এবং অনেক বাজে কটূক্তিমুলক পোষ্ট করেছে দেখতে পারেন এই লিঙ্কে (http://archive.is/qsEo5)


আচ্ছা এমন লিখা দেখার পরে কিভাবে একজন মুসলমান নিরব শান্ত থাকবে? এগুলো কি মুসলমানদের উস্কানি দেওয়া নয়? এইসব লিখার কারনে খুন খারাবি হলে এর দায়ভার কার? শান্ত দেশকে কারা অশান্ত করতে চাচ্ছে? সরকার মহদয় কি বুঝতে পারছেন না এইসব চক্রান্তের শেষ পরিনতী কি?

আমি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে এবং ছাত্রলীগ, যুবলিগ আওয়ামীলীগের কাছে জানতে চাই William Gomes যদি মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বদলে শেখ মুজিব কে গালি আর কটূক্তি করতো তাহলে কি সে অপরাধী হিসেবে সাস্থি পেতো? যদি বলেন হ্যাঁ তাহলে জানতে চাই মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা কি শেখ মুজিবুর রহমান থেকে বেশী মর্যাদার অধিকারী ও সম্মানিত নন আপনাদের কাছে?

আমি বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিরোধীদলীয় নেত্রি বেগম খালেদাজিয়ার কাছে এবং ছাত্রদল, যুবদল, বিএনপির সমস্থ নেতা নেত্রীর কাছে জানতে চাই William Gomes যদি মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বদলে জিয়াউর রহমান কে গালি আর কটূক্তি করতো তাহলে কি সে অপরাধী হিসেবে আপনাদের কাছে দোষী সাব্যস্ত হতো এবং বিচারের জন্য হরতাল আবরোধের ডাক আপনারা দিতেন না? যদি বলেন হ্যাঁ তাহলে জানতে চাই মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা কি জিয়াউর রহমান থেকে বেশী মর্যাদার অধিকারী ও সম্মানিত নন আপনাদের কাছে?

আমি বাংলাদেশের ইসলামিক লেবাসধারি রাজনৈতিক সঙ্ঘটন তথা হেফাজতে ইসলাম, জামায়াত এ ইসলাম, খেলাফত আন্দোলন, চরমোনাই সহ সকল লেবাসধারি নেতাদের নিকট জানতে চাই আজকে যদি William Gomes মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বদলে আপনাদের রাজাকার ও গণতন্ত্রের চেয়ারের আশাবাদি নেতাদের গালিগালাজ করতো তখন কি মিসিল মিটিং হরতাল অবরোধের ডাক দিতেন না? যদি আপনাদের উত্তর হ্যাঁ হয় তাহলে জানতে চাই মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা কি আপনাদের কাছে আপনাদের নেতা ক্ষেতার চেয়ে বেশী মর্যাদার অধিকারী ও সম্মানিত নন? হয়ে থাকলে প্রতিবাদ কই সবাই নিরব কেনো?

আমি বাংলাদেশের সকল ইসলামিক দরবার সিলসিলাহ ও তরিকার প্রধান এবং অনুসারীদের কাছে জানতে চাই বিশেষ করে ছাত্রসেনা, ছারসিনা, সুনাকান্দা, ফুরফুরা, ফুলতলি, যইনপুর সহ নিজেদের হক্ব দাবিকারি সকল দরবার শরীফের পির সাহেব এবং মুরিদদের কাছে আমার প্রশ্ন আজকে যদি William Gomes মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বদলে আপনাদের পির সাহেব বা মুর্শিদ কে এভাবে প্রকাশ্যে গালিগালাজ করতো তাহলে কি আপনি চুপ করে থাকতেন প্রতিবাদ না করে? যদি বলেন না ? তাহলে জানতে চাই এখনো কেনো প্রতিবাদ হচ্ছেনা? কেনো এই জানোয়ার এর বিরুদ্বে ফাঁশির দাবি নিয়ে সরকার এর কাছে বিচার চাওয়া হচ্ছেনা? কেনো সাংবাদিক সম্মেলন করে ফাঁশির দাবি করা হচ্ছেনা? কেনো জেলায় জেলায় প্রেসক্লাবে প্রেসক্লাবে মানব্বন্ধন করে তার ফাঁশির দাবি তুলা হচ্ছেনা? তাহলে কি মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের থেকে আপনাদের কাছে আপনাদের পির মুর্শিদের ইজ্জত সম্মান আর মর্যাদা বেশী??????????

আমি বাংলাদেশের সমস্থা ইমানদার মুসলিম ম্যজিস্টেট, সমস্থ মুসলিম আইনজিবি, সমস্থ মুসলিম আর্মি অফিসার, সমস্থ মুসলিম পুলিশ অফিসার, সমস্থ মুসলিম র‍্যাব অফিসার, সমস্থ মুসলিম বিজিবি অফিসার, সমস্থ মুসলিম নৌ এবং বিমান বাহিনির অফিসার সহ সিআইডি, এসবি, ডিবি, কাউন্টার টেররিজম সহ প্রশাসনের সমস্থ মুসলিম অফিসারদের কাছে জানতে চাই আজকে যদি William Gomes মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বদলে আপনাদের পিতামাতার নাম ধরে গালি আর কটূক্তি করতো তাহলে কি সে অপরাধী হিসেবে আপনাদের কাছে সাব্যস্ত হতো এবং আপনারা কঠোর হস্তে এই নাস্তিক কে দমন করতেন না? যদি আপনাদের উত্তর হ্যাঁ হয় তাহলে জানতে চাই মহান আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা কি আপনাদের কাছে আপনাদের পিতামাতা থেকে বেশী মর্যাদার অধিকারী ও সম্মানিত নন?

এখন কথা হচ্ছে আপনি যদি নিজেকে মুসলিম মনে করে থাকেন যদি মনে করেন যে আমাকে মরতে হবে তাহলে আপনার জানা উচিৎ যে মহান আল্লাহ্‌ পাক জান্নাতের সার্টিফিকেট পর্যাপ্তদেরকেও হুঁশিয়ার করে দিচ্ছেন সেখানে আপনার বিষয় কি হতে পারে চিন্তা করে দেখুন? ঈমানদার মুসলিম হওয়ার পরেও মহান আল্লাহ্‌ পাক তিনি বলতেছেনঃ (يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا اتَّقُوا اللَّهَ حَقَّ تُقَاتِهِ وَلَا تَمُوتُنَّ إِلَّا وَأَنتُم مُّسْلِمُونَ) হে ঈমানদারগণ! খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনাকে যেমন ভয় করা উচিৎ ঠিক তেমনিভাবে ভয় করতে থাকো এবং অবশ্যই মুসলমান না হয়ে মৃত্যুবরণ করো না

শুধু তাই না মহান আল্লাহ্‌ পাক তিনি কাদের সাথে সমাজে সম্পর্ক রাখবেন এবং সম্পর্কচ্ছেদ করবেন তাও স্পষ্ট বলে দিচ্ছেনঃ (لَّا تَجِدُ قَوْمًا يُؤْمِنُونَ بِاللَّهِ وَالْيَوْمِ الْآخِرِ يُوَادُّونَ مَنْ حَادَّ اللَّهَ وَرَسُولَهُ وَلَوْ كَانُوا آبَاءَهُمْ أَوْ أَبْنَاءَهُمْ أَوْ إِخْوَانَهُمْ أَوْ عَشِيرَتَهُمْ ۚ أُولَٰئِكَ كَتَبَ فِي قُلُوبِهِمُ الْإِيمَانَ وَأَيَّدَهُم بِرُوحٍ مِّنْهُ ۖ وَيُدْخِلُهُمْ جَنَّاتٍ تَجْرِي مِن تَحْتِهَا الْأَنْهَارُ خَالِدِينَ فِيهَا ۚ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُمْ وَرَضُوا عَنْهُ ۚ أُولَٰئِكَ حِزْبُ اللَّهِ ۚ أَلَا إِنَّ حِزْبَ اللَّهِ هُمُ الْمُفْلِحُونَ) যারা  মহান আল্লাহ পাক ও আখেরাতে বিশ্বাস করে, তাদেরকে আপনি কখনো মহান আল্লাহ পাক ও উনার রসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিরুদ্ধাচরণকারীদের সাথে বন্ধুত্ব বা বন্ধুত্বপূর্ণ আচরন করতে দেখবেন না, যদিও তারা তাদের পিতা, পুত্র, ভ্রাতা অথবা জ্ঞাতি-গোষ্ঠী হয়

এখন আপনিই বলুন যেখানে পিতামাতাই মুল্যহিন যদি উনারা মহান আল্লাহ পাক ও রসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিরোধী হয়ে থাকেন সেখানে একজন নাস্তিক কিভাবে আপনাদের কাছে আপন হচ্ছে? যদি আপন না হয় তাহলে প্রতিবাদ নাই ক্যান?

শুধু তাই নয় সাইয়্যিদুল মুরসালিন ইমামুল মুরসালিন নূরে মুজাসসাম হাবিবুল্লাহ হুযুরপাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেনঃ তোমাদের কেউ ততক্ষন পর্যন্ত মুমিন হতে পারবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত আমি তার কাছে তার পিতামাতা, সন্তান সন্ততি ও সমস্থ মানুষের চেয়ে বেশি প্রিয় না হই অর্থাৎ তুমরা যদি তোমাদের পিতা মাতা সন্তান সন্ততি এবং সমস্থ মানুষ থেকে সবচেয়ে বেশি মুহব্বত আমাকে না করো

দলীল সুত্রঃ বুখারি শরীফঃ হাদিস শরীফ নং ১৫ মুসলিম শরীফঃ হাদিস শরীফ নং ১৭৮

আর এমন অন্যায় এহেন নিচ কাজ দেখেও যারা প্রতিবাদ না করে চুপটি মেরে বসে আছেন তাদের জানা প্রয়োজনঃ হযরত আবু সাঈদ খুদুরী রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু রাসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার থেকে বর্নণা করেনঃ রাসূলে খোদা হুযুরপাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেছেন, তোমাদের মধ্যে যেকোনো লোক যেকোনো অন্যায় কাজ হতে দেখলে প্রথমে সে যেনো হাত দ্বারা বাধা দেয়, যদি তাতে সক্ষম না হয় তখন সে যেনো তার মুখ দ্বারা বাধা দেয়, আর যদি তাতেও সক্ষম না হয় তাহলে সে যেনো সমস্থ অন্তর দিয়ে তা ঘৃণা করে তবে শুধু অন্তর দিয়ে ঘৃণা করা সবচেয়ে দুর্বল ঈমানের পরিচায়ক (মুসলিম শরীফ)

এখন আপনি চিন্তা করে দেখুন আপনি একজন ক্ষমতাবান মানুষ হয়েও মহান আল্লাহ্‌ পাক এবং রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার কটূক্তিকারিদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছেন না এমনকি কোনো একশন ও নিচ্ছেন না তাহলে আপনি কি মুসলিম? আপনি কি মুমিন? আপনি কি ইমানদার? আপনি কি রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উম্মত? দয়াকরে উত্তর আমাকে না দিলেও নিজে নিজেকে দিবেন।

তার আরো কিছু ইসলাম বিদ্বেষী পোষ্ট এর স্ক্রিনশট দিলাম দেখে নিন।





সে নিজেকে নাস্তিক দাবি করলেও দেখুন খ্রিস্টমাসের উইশ করছে ঠিকিই অর্থাৎ সে ইসলাম বিদেশী আর আপনাদের আবারো মনে করিয়ে দিই এভরি নাস্তিক ইজ ছুপা কাফের।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: