3.12.2017

ইস্কনের অনুসারী কট্টর হিন্ধু প্রধান বিচারপতি বলছে বাংলাদেশ নাকি ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হিসেবেই আছে

ইস্কনের অনুসারী কট্টর হিন্ধু প্রধান বিচারপতি বলছে বাংলাদেশ নাকি ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হিসেবেই চলছেমুসলমানদের কোণঠাসা করতে সে হিন্দুদের একজোট হওয়ার দাবি করছে আর আমরা মুনাফিকের মতো প্রতিবাদ না করে একে অন্যের পাছায় বাঁশ দিতেই ব্যস্ত

স্বাধীনতার পর কিছু সময়ের জন্য বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষতার পথ থেকে বিচ্যুত হয়ে গেলেও এখন সম্পূর্ণরূপে একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশ হিসেবেই বাংলাদেশ চলছে বলে মন্তব্য করেছে ইস্কনের অনুসারী কট্টর হিন্ধু প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাসে বলেছে, ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হয়েছেএত রক্তের বিনিময়ে আমরা একটি ধর্মনিরপেক্ষ সংবিধান পেয়েছিআইনের শাসনের প্রকৃত স্বাধীনতা বজায় রেখে সেই ধর্মনিরপেক্ষতা আমাদের ধরে রাখতে হবে

শনিবার (১১ মার্চ) দুপুরে শ্রীমঙ্গল শহরের হবিগঞ্জ রোডস্থ জগন্নাথ দেবের আখড়ায় সনাতনীদের শ্রী শ্রী গৌরাঙ্গ মহাপ্রভুর ৫৩২তম আবির্ভাব ও শুভ দোল পূর্ণিমা উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইস্কনের অনুসারী কট্টর হিন্ধু প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা এসব কথা বলে

অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি বলে, ‘বাংলাদেশ একটি ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রকিন্তু স্বাধীনতার পর কিছুদিনের জন্য দেশ সেই ধারা থেকে বিচ্যুতি হয়েছিলোএরপর আবার গণতান্ত্রিক সরকার ক্ষমতায় এলে অগণতান্ত্রিক সামরিক শাসনের সব বিধান বাতিল করা হয়েছেএখন আমরা আবারও সম্পূর্ণরূপে ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে

অনেক মন্দির শত শত বছর আগে প্রতিষ্ঠিত এবং সেগুলো সরকারের খাস খতিয়ানে না থাকলেও সেগুলো নিয়ে চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই বলেও হিন্ধুদের আশ্বাস দেয় এস কে সিনহাসে বলে, ‘অনেক সেবায়েত দেশ ছেড়েছে, অনেকে মারা গেছেআবার অনেকের দান সঠিকভাবে রক্ষিত হয়নি, সেগুলোর কাগজপত্রও নেইকোনো মন্দিরের জায়গা সরকারি রেকর্ডে না থাকলে ভবিষ্যতে গোলমাল হতে পারে বলে আপনারা আশঙ্কা করতে পারেনকিন্তু প্রথা অনুযায়ী কোনও মন্দির ৬০ বছরের বেশি সময় ধরে চালু থাকলে তার ওপর জনগণের অধিকার হয়ে যায়মন্দিরগুলোর ওপরও তেমন আপনাদের অধিকা থাকবেএসময় হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদের একতাবদ্ধ হওয়ার পরামর্শ দিয়ে সে আরও বলেন, ‘আপনারা একতাবদ্ধ থাকবেনতাতে অধিকার আদায় করাটা সহজ হবে

কলকাতা থেকে আগত ত্রয়োদশ নিত্যানন্দ বংশাবতংশ প্রভুপাদ শ্রীমৎ গুরুরাজ কিশোর গোস্বামীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক তোফায়েল ইসলাম, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহ্জালাল, শ্রীমঙ্গল উপজেলা চেয়ারম্যান রনধীর কুমার দেবসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা


সুত্রঃ http://archive.is/PKdBd


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: