6.12.2017

অসাম্প্রদায়িক মুসলমানদের ভবিষ্যৎ পরিনতি কিন্তু এমনি হবে

অসাম্প্রদায়িক মুসলমানদের ভবিষ্যৎ পরিনতি কিন্তু এমনি হবে
অসাম্প্রদায়িক মুসলমানদের ভবিষ্যৎ পরিনতি কিন্তু এমনি হবে
তাকে গাড়ির সামনে বাঁধা হয়েছে, কারণ অসাম্প্রদায়িক মুসলমানদের ধরাটা খুবই সহজ। গতো কয়েক মাস আগে ভারতীয় আর্মিদের জিপের সাথে বেঁধে এক কাশ্মীরিকে ঘোরানোর ছবি সবাই দেখেছেনলিতুল গগইনামে যেই আর্মি এই কাজটি করেছিল, পরবর্তীতে তাকে রাষ্ট্রীয়ভাবে সম্মান দেয়া হয় শুধু তাই নয় এমনকি ভারতীয় বিভিন্ন অভিনেতা ও খেলোয়াড় তার প্রশংসা করে নাউযুবিল্লাহ!!

অনেকে খবরের এ পর্যন্ত পড়েই ধারণা করে ফেলেছেন যে ঐ কাশ্মীরি বোধহয় আর্মির বিপক্ষে ছিলো, তাই তাকে জিপে বাঁধা হয়েছেআসলে বিষয়টি সম্পূর্ণই উল্টোঐ দিনে কাশ্মীরে ভোট হচ্ছিলযেসব কাশ্মীরি ভারতীয় রাষ্ট্রযন্ত্রের অনুগত, তারা সেদিন ভোট দিতে গিয়েছিলআর যারা বিদ্রোহী, তারা আর্মির বিরুদ্ধে পাথর ছুঁড়েছিলফারুক আহমদ দারনামক যে যুবকটিকে গাড়িতে বাঁধা হয়েছে, সে সেদিন ভোট দিতে গিয়েছিল শ্রীনগর বাইপোলেভোট দিয়ে মোটরসাইকেলে ফেরার পথে সেই ভারতীয় আর্মি ফারুক আহমদ দারকে আটক করে এবং তাকে লাঠি ও বন্দুকের বাট দিয়ে বেদম পেটায়ফারুক যে বিদ্রোহী ছিল না, তার প্রমাণ হিসেবে তার কাছে ভোটার স্লিপও ছিলকিন্তু আর্মি সেগুলো সব অগ্রাহ্য করে ফারুককে জিপের সাথে বেঁধে গ্রামের পর গ্রাম প্রদক্ষিণ করে, যেন কেউ পাথর ছুঁড়লেই সেটা গিয়ে তার গায়ে লাগে। (https://goo.gl/T6gOQQ)

ঘটনাটি বিশ্লেষণ করে আমরা প্রথমেই বুঝতে পারি যে, ভারতীয় হিন্দুরা কতোটা জঘন্য সাম্প্রদায়িককোন আক্রমণকারীকে ধরে নেয়া তো ভীতু ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষে সম্ভব নয়, তাই নিজেদের পক্ষেরই এক নিরস্ত্র কাশ্মীরি ভোটারকে পথ থেকে ধরে নিয়ে জিপে বাঁধা হলহিন্দুদের দৃষ্টিতে এটা কোন সমস্যাই নয়, কারণ যাকে বাঁধা হয়েছে সেও তো মুসলমানতাই সেদেশের হিন্দু সিনেমা অভিনেতারা পর্যন্ত নির্লজ্জের মতো আর্মির পক্ষে মাঠে নেমে পড়লঅরুন্ধতী রায় যখন ঘটনাটির প্রতিবাদ করল, তখন বলিউড অভিনেতা পরেশ রাওয়ালটুইট করল, ফারুক দারের বদলে তাকেই যেন জিপে বেঁধে ঘোরানো হয়। (https://goo.gl/hqnzgN)


এখান থেকে হিন্দু অনুগত অসাম্প্রদায়িক মুসলমানদের অনেক কিছুই শিক্ষা নেয়ার রয়েছেখ্রিস্টানরা স্পেন দখল করার পর তাদের অনুগত যেসব মুসলমান নামধারী বেঈমান মুনাফিক ছিল, তাদেরকেই সর্বপ্রথম হত্যা করা হয়েছিলঠিক সেভাবেই বাংলাদেশ যদি হিন্দুস্তান হয়ে যায়, তাহলে সর্বপ্রথম এই অসাম্প্রদায়িক মুসলমানদের মা-বোনদেরকে ধরে নিয়েই হিন্দুরা রেপ করবেকারণ পেটানোর ক্ষেত্রে তাদের মুসলমানের চামড়া হলেই চলবে, ধর্ষণের ক্ষেত্রে মুসলমান মেয়েদের পবিত্র লজ্জাস্থান হলেই চলবেপক্ষে না বিপক্ষে, একবার রামরাজত্ব কায়েম হয়ে গেলে সেটা কিন্তু হিন্দুরা দেখতে যাবে না এতএব সাম্প্রদায়িক হবেন নাকি অসাম্প্রদায়িক হবেন সময় এখনো আছে ঠিক করে নেন।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: