7.05.2017

বস-২ ছবিতে নর্তকী চরিত্রের নাম আয়েশা কেন ? ঈমানদার মুসলমান কি জানে?

বস-২ ছবিটা শুরুতেই বির্তক সৃষ্টি করেছিলো একটি গানের কথা নিয়ে। অশ্লীল অঙ্গভঙ্গিতে নাচা নুসরাত ফারিয়ার সেই গানের কথায় ছিলো আল্লাহ মেহেরবান। এই কথাটি নিয়ে অনেক তর্ক-বিতর্ক হয়েছে। আমাদের তিব্র প্রতিবাদের ফলে তাদের * রেটিং থেকে * আসায় গানের কথা চেঞ্জ করে ইয়ারা মেহেরবান করে তবুও সত্য-মিথ্যার নির্ণয় পুরদমে এখনও করতে পারিনি। তবে এখন শুনছি, নুসরাত ফারিয়ার সেই নর্তকীর চরিত্রের নাম রাখা হয়েছে- আয়েশা। নাউযুবিল্লাহ!!!

সিনেমাটির পরিচালক দেখলাম দুজন ভারতীয় হিন্দু। একজনের নাম রাজ চক্রবর্তী, অন্যজনের নাম বাবা যাদব। স্বাভাবিকভাবে কথা উঠতে পারে, এত এত নাম থাকতে একজন নর্তকীর নাম কেন আয়েশারাখলো দুইজন হিন্দু পরিচালক? যেখানে এই নামটির সাথে মুসলমানদের ধর্মীয় সেন্টিমেন্ট খুব স্পর্শকাতর এবং বিশেষভাবে জড়িত। আমাদের শেশ নবী রসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আহলিয়া(স্ত্রী)র নাম ছিলো এই নামে। কিন্তু মুসলমান না বুঝলেও এই নাম তারা ইহানত করে রাখে, অথচ এই নাম না রেখে অন্য নামও তো রাখতে পারতো?

বলাবাহুল্য, মুভির ট্রেইলার দেখে আল্লাহ মেহেরবানশব্দ দুখানা শুনে অনেকে প্রতিবাদ করেছে, কিন্তু চরিত্রটার নাম জানতে পেরেছে পরে। যেহেতু আমি টিভি মুভি দেখিনা তাই জানা সম্ভব হয়নি নাহলে প্রথমেই তা জানতে পারতাম। আর শুরুতে জানলে হয়তো এটা নিয়েও প্রতিবাদ করতাম। অবশ্যই এই নাম নিয়ে অনেক ইসলামী সংগঠন এখন বিবৃতি দিচ্ছে (http://bit.ly/2upUuv0)। তবে আমার কথা হলো- আল্লাহ মেহেরবানগান দিয়ে যারা উস্কানি সৃষ্টি করতে চেয়েছে, একইভাবে নর্তকীর চরিত্রের নাম আয়েশাদিয়ে ঐ একই লোকের তো উস্কানি দেয়ারই কথা।

আমি জানি, ভারতের হিন্দুরা কিন্তু এসব নাম নিয়ে খুব সেনসেটিভ। যেমন-

১) সাইফ-কারিনার সদ্য প্রসুত সন্তানের নাম তৈমুর রাখাতে হিন্দুরা কিন্তু ব্যাপক প্রতিবাদ করেছিলো। এমন কি শেষ পর্যন্ত তাদের প্রতিবাদের মুখে সাইফ তার সন্তানের নাম পরিবর্তন করবেন বলে ঘোষণা দেন। উল্লেখ্য তৈমুর নামটি মুসলিম সেনাপতি তৈমুর লং এর নাম অনুসরণে করায় ক্ষোভ তৈরী হয় ভারতীয় হিন্দুদের মধ্যে। (http://bbc.in/2tMhLJS, http://bit.ly/2tIy62A) চিন্তা করেন একজন সাধারণ সেনাপতির নামের বেলায় যদি এদের এই হয় চুলকানি তাহলে সমস্থ উম্মতের মা যিনি উনার বেলায় কি হতে পারে।

২) কিছুদিন আগে দিল্লীর বিখ্যাত সড়ক আওরঙ্গজেব সড়কের নাম পাল্টিয়ে রাখা হয় আবদুল কালাম সড়ক (http://bit.ly/2upsacj)। কারণ আওরঙ্গজেব ছিলেন মোঘল শাসক, যিনি মারাঠা ডাকাত নেতা শিবাজীকে (যাকে হিন্দুরা পূজা করে) দমন করেছিলেন। উল্লেখ্য আবদুল কালামনামটি ভারতে শুনতে মুসলমানী হলেও, তা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালামের নাম, যে ছিলো উগ্রহিন্দুত্ব জাতীয়তাবাদীদের অন্যতম মাস্টারমাইন্ড। (http://bit.ly/2tq1dFi)

৩) ভারতের কট্টর হিন্দুবাদীদল আরএসএস কিছুদিন আগে ভারতের তিনটি শহরের নাম পাল্টানোর প্রস্তাব করেছে। আহমেদাবাদ এর পরিবর্তে কারানভাটি, হায়দ্রাবাদের পরিবর্তে ভাগ্যনগর এবং আওরঙ্গবাদের পরিবর্তে স্বামীজি নগর রাখার প্রস্তাব দেয়। (http://bit.ly/2sGuEWu)

৪) এ বছরই ভারতের মুসলিম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দের নাম পরিবর্তন করার দাবি করেছে এক বিজেপি নেতা। বিজেপি নেতার দাবি দেওবন্দ পরিবর্তন করে দেওভৃন্দ করার জন্য। (http://bbc.in/2tQRsml)

বাংলাদেশীদের মধ্যে একটা প্রবাদ আছে- নামে কি বা আসে যায়। অনেকে হয়ত ভাবেন- বোধহয়, এমনি এমনি নতর্কীর নাম আয়েশা দেয়া হয়েছে।অথচ ভারতীয় হিন্দুরা নামের ব্যাপারে কতো সেনসিটিভ তা মূর্খ ব্যতীত সবাই জানে। তারা এমনি এমনি কিছু করেনি, বহুপ্ল্যান করেই মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করতেই কাজটি করেছে।

কয়েকদিন আগে খবরে দেখলাম নারায়ায়নগঞ্জে সেলিম নামক একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ! খবরে প্রকাশ, দুবাই ফেরত সেলিম নাকি তার পোষা কুকুরের নাম শেখ হাসিনারেখেছে। এই খবর প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথে সেলিমকে গ্রেফতার করে পুলিশ। শেখ হাসিনার নাম নিয়ে এমন করলে যদি গ্রেফতার হতে হয়, তবে আয়েশানাম নিয়ে নর্তকীর নাম রাখলেও তার শাস্তি হওয়া কি উচিত নয়?। আমার মনে হয়, এই সিনেমাটি বাংলাদেশে নিষিদ্ধ করা উচিত এবং এর সাথে জড়িতদের অবশ্যই শাস্তির আওতায় আনা উচিত।


আপনারা কি বলেন?


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: