7.09.2017

মসজিদে নজরদারী বাড়াতে হবে, মন্দিরে নয়ঃ প্রধান হিন্দু বিচারপতি এস কে সিনহা


প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছে, মসজিদে যেনো কোনো ধর্মীয় অপব্যাখ্যা বা উস্কানীমূলক বক্তব্য দিতে না পারে সেদিকে নজরদারী বাড়াতে হবে। শুক্রবার কুমিল্লা শহরের কাপড়িয়া পট্টিতে শ্রী চাঁন্দমনি রক্ষাকালী মন্দিরের উদ্বোধন কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সে এই কথা বলে। খবর বাসসের।

আমাদের প্রশ্নঃ মন্দিরের ব্যপারে কেনো বলনাই বাপু? নাকি নিজের দই সবসময় মিঠা? আর মন্দির উদ্ভোদন করে মসজিদের উপর নজরদারী বাড়াতে চাও? আচ্ছা বাপু কালি মন্দিরের কালি মূর্তির সম্পর্কে কিছু বলো? এর থেকে মানুষ কি শিক্ষা নেবে? আদব শরাফত? স্নেহ? ভালোবাসা?

সে বলেছে, সন্ত্রাস নাশকতা প্রতিরোধে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। বিচারপতি আরো বলে, প্রতিটি ধর্ম গ্রন্থে মানুষের কল্যাণের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহল ধর্মের অপব্যাখ্যা করে ধর্মের নামে ধ্বংসযজ্ঞ চালায়।

আমাদের প্রশ্নঃ কোন মসজিদের ইমাম সাহেবেরা অপব্যখ্যা করেন? রামদেবের মতো মন্দিরের পুরোহিতরা মানুষকে কি কি শিক্ষা দেন?

সে শান্তি ও সম্প্রীতির মাধ্যমে সহ অবস্থানের সাথে এক সাথে সুখে দুঃখে সকলে মিলে মিশে যার যার ধর্ম সুষ্ঠুভাবে পালনের জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।

আমাদের প্রশ্নঃ কিভাবে পালন করবে? আমাদের ধর্মে গরু খওয়া জায়েজ অথচ তাতে তদের আপত্তি, অথচ আমাদের ধর্মে মূর্তিপূজা শিরক সবথেকে বড় পাপ হওয়ার পরেও প্রতি বছর তোরা শান্তিপূর্ণভাবে দুর্গাপূজা কালীপূজা রথপূজা করে যাচ্ছিস কেউ বাধা দিচ্ছেনা?

কুমিল্লার ভারপ্রাপ্ত জেলা ও দায়রা জজ শ্রী চাঁন্দমনি রক্ষাকালী মন্দিরের ইনটেষ্টর শ্রী জেবুননেছার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলো প্রধান বিচারপতির পত্নী সুষমা স্বরাজ, সাবেক নির্বাচন কমিশনার ও সাবেক জেলা জজ ছহুল হোসাইন, সাবেক জেলা জজ দেওয়ান সফিউল্লাহ প্রমুখ।


আমাদের প্রশ্নঃ বেগম জেবুননেছা, ছহুল হোসাইন, দেওয়ান সফিউল্লাহ সাহেবরা কতগুলো মসজিদ উদ্বোধন করেছে?

সুত্রঃ http://archive.is/34bCN


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: