7.03.2017

কুরআন নিয়ে নাকি সমস্যা আছে, বচনেঃ ISIS এর আক্বিদা পোষনকারী সালমান এফ রহমান

কুরআন শরীফ অবমাননা করে সালমান এফ রহমান মুরতাদ হয়েগেছে এতএব ৩ দিনের ভেরত যদি প্রকাশ্যে তওবা না করে এবং তওবা ব্যতিত মারা যায় তাহলে মুরতাদ বলে গন্য হবে। কুরআন শরীফ অবমাননার দায়ে সালমান এফ রহমান কে বিচারের আওতায় আনা হোক সবাই প্রতিবাদের ঝড় তুলুন।

বেক্সিমকোর প্রতিষ্ঠাতা সালমান এফ রহমানের নাম অনেকেই জানেন। বহু বির্তকে বির্তকিত এই ব্যাক্তি এমন এক বির্তকের জন্ম দিয়েছে যে যেটা সরাসরি কুরআন শরীফের উপর আঘাত করেছে যার কারনে ঈমান্দার প্রত্যেক মুসলমানের অন্তর ক্ষতবিক্ষত হয়ে গেছে।

ওহাবী সালাফী, লা’মাযহাবীদের “আহলে হাদীস আন্দোলন” এর ব্যানারে এক অনুষ্ঠানে সালমান এফ রহমান এক পর্যায়ে বলেছে, “কুরআনটা নিয়ে তেমন সমস্যা নেই, কুরআনটা নিয়েও সমস্যা আছে তবে তেমন নয়।”

ভিডিওতে তার বক্তব্য দেখুনঃ 


পৃথিবীর জমিনে একমাত্র বিধর্মী, কাফের মুশরেক ও নাস্তিকরা ছাড়া আর কেউ এমন জঘন্য উক্তি এই পর্যন্ত করে নাই। অথচ আমাদের দেশের দরবেশ নামধারী শিল্পপতি সালমান এফ রহমান মহা সম্মানিত পবিত্র কুরআনে(মহান আল্লাহ পাক উনার জবান মুবারক) সমস্যা পাচ্ছে। নাউযুবিল্লাহ!!! নাউযুবিল্লাহ!!! নাউযুবিল্লাহ!!!

কিন্তু আফসোস তার পিছনে দাড়ি টুপি পড়া মৌলবী গুলোও একটু প্রতিবাদ করলো না। বরং মুচকি মুচকি হাসতে লাগলো, আর সামনে যারা ছিলো তার অনবরত হর্ষধ্বনিতে ময়দান গরম করতে লাগলো। নাউযুবিল্লাহ!!! নাউযুবিল্লাহ!!! নাউযুবিল্লাহ!!! এ থেকেই আজ লা’মাযহাবীদের চরিত্র জনসম্মুখে প্রকাশ হয়ে গেলো।

যাই হোক, পবিত্র কুরআন শরীফ সর্ম্পকে মহান আল্লাহ পাক কুরআন শরীফেই চ্যালেঞ্জ দিয়ে যা বলেছেন তা উল্লেখ করা ঈমানী দায়িত্ব মনে করছিঃ [ذَٰلِكَ الْكِتَابُ لَا رَيْبَ ۛ فِيهِ ۛ هُدًى لِّلْمُتَّقِينَ] এ সেই কিতাব যাতে কোনই সন্দেহ নেই। পথ প্রদর্শনকারী পরহেযগারদের জন্য। (সূরা বাক্বারা শরীফঃ আয়াত শরীফ ২)

মহান আল্লাহ পাক তিনি আরো বলেনঃ [إِنَّا نَحْنُ نَزَّلْنَا الذِّكْرَ وَإِنَّا لَهُ لَحَافِظُونَ] নিশ্চয়ই এই পবিত্র কুরআন শরীফ আমি নাযিল করেছি এবং আমি নিজেই এর হিফাজতকারী। (সুরা হিজর শরীফঃ আয়াত শরীফ ৯)

*অথচ সালমান দরবেশ পবিত্র কুরআন শরীফের ভেতরে সমস্যা খুঁজে পাচ্ছে (!!!!!) নাউযুবিল্লাহ!!! আর তাতে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে সালাফি লা মাজহাবি কাট মুল্লারা।

অথচ মহান আল্লাহ পাক তিনি বলেনঃ [قُل لَّئِنِ اجْتَمَعَتِ الْإِنسُ وَالْجِنُّ عَلَىٰ أَن يَأْتُوا بِمِثْلِ هَٰذَا الْقُرْآنِ لَا يَأْتُونَ بِمِثْلِهِ وَلَوْ كَانَ بَعْضُهُمْ لِبَعْضٍ ظَهِيرًا] যদি মানব ও জ্বিন এই কোরআনের অনুরূপ রচনা করে আনয়নের জন্যে জড়ো হয়, এবং তারা পরস্পরের সাহায্যকারী হয়; তবুও তারা কখনও এর অনুরূপ রচনা করে আনতে পারবে না। (বনি ইসরাঈল শরীফঃ আয়াত শরীফ ৮৮)

শুধু তাই নয় তিনি আরো বলেনঃ [وَإِن كُنتُمْ فِي رَيْبٍ مِّمَّا نَزَّلْنَا عَلَىٰ عَبْدِنَا فَأْتُوا بِسُورَةٍ مِّن مِّثْلِهِ وَادْعُوا شُهَدَاءَكُم مِّن دُونِ اللَّهِ إِن كُنتُمْ صَادِقِينَ] এতদসম্পর্কে যদি তোমাদের কোন সন্দেহ থাকে যা আমি আমার হাবীব সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি অবতীর্ণ করেছি, তাহলে এর মতো একটি পবিত্র সূরা রচনা করে নিয়ে এস। তোমাদের সেসব সাহায্যকারীদেরকে সঙ্গে নাও-এক মহান আল্লাহ পাক উনাকে ছাড়া, যদি তোমরা সত্যবাদী হয়ে থাকো। (বাক্বারা শরীফঃ আয়াত শরীফ ২৩)

মহান আল্লাহ পাক তিনি বলেনঃ [وَمَا كَانَ هَٰذَا الْقُرْآنُ أَن يُفْتَرَىٰ مِن دُونِ اللَّهِ وَلَٰكِن تَصْدِيقَ الَّذِي بَيْنَ يَدَيْهِ وَتَفْصِيلَ الْكِتَابِ لَا رَيْبَ فِيهِ مِن رَّبِّ الْعَالَمِينَأَمْ يَقُولُونَ افْتَرَاهُ ۖ قُلْ فَأْتُوا بِسُورَةٍ مِّثْلِهِ وَادْعُوا مَنِ اسْتَطَعْتُم مِّن دُونِ اللَّهِ إِن كُنتُمْ صَادِقِينَ] আর পবিত্র কোরআন শরীফ সে জিনিস নয় যে, মহান আল্লাহ পাক তিনি ব্যতীত কেউ তা বানিয়ে নেবে। অবশ্য এটি পূর্ববর্তী কালামের সত্যায়ন করে এবং সে সমস্ত বিষয়ের বিশ্লেষণ দান করে যা আপনার প্রতি দেয়া হয়েছে, যাতে কোন সন্দেহ নেই-আপনার বিশ্বপালনকর্তার পক্ষ থেকে। মানুষ কি বলে যে, এটি বানিয়ে এনেছ? বলে দিন, তোমরা পারলে একটিই পবিত্র সূরা আনয়ন করো, আর সঙ্গি হিসেবে যাকে খুশী তাকে দেকে নাও এক মহান আল্লাহ পাক তিনি ব্যতীত, যদি তোমরা সত্যবাদী হয়ে থাকো। (সূরা ইউনূস শরীফঃ আয়াত শরীফ ৩৭-৩৮)

আর পবিত্র কুরআন শরীফের মর্যাদা সর্ম্পকে মহান আল্লাহ পাক তিনি বলেনঃ [لَوْ أَنزَلْنَا هَٰذَا الْقُرْآنَ عَلَىٰ جَبَلٍ لَّرَأَيْتَهُ خَاشِعًا مُّتَصَدِّعًا مِّنْ خَشْيَةِ اللَّهِ ۚ وَتِلْكَ الْأَمْثَالُ نَضْرِبُهَا لِلنَّاسِ لَعَلَّهُمْ يَتَفَكَّرُونَ] যদি আমি এই পবিত্র কোরআন শরীফ কে পাহাড়ের উপর অবতীর্ণ করতাম, তবে আপনি দেখতে পেতেন যে, পাহাড় বিনীত হয়ে মহান আল্লাহ তা’আলা উনার ভয়ে বিদীর্ণ হয়ে গেছে। আমি এসব দৃষ্টান্ত মানুষের জন্যে বর্ণনা করি, যাতে তারা চিন্তা-ভাবনা করে। (সূরা হাশর শরীফঃ আয়াত শরীফ ২১)

অথচ ওহাবী সালাফী আহলে হদসের ফান্ড দাতা মুরতাদ সালমান বলছে, কুরআনটা নিয়েও সমস্যা আছে। লা’ হাওলা ওয়ালা কুওয়াতা ইল্লা বিল্লাহ।

পবিত্র কুরআন শরীফ নিয়ে এমন জঘন্য কথা বলে সালমান নিজেও মুর্তাদ হয়ে গেছে, এবং উপস্থিত সকল সালাফী যারা প্রতিবাদ না করে হাসছিলো ও তালি দিচ্ছিলো তারাও কুফরীকে সমর্থন করে মুর্তাদ হয়ে গেছে।

সবাই প্রতিবাদের ঝড় তুলুন এবং পূর্ববর্তী সকল নাস্তিক মুরতাদ এর মতো একেও শাস্তির আওতায় আনার আন্দলন করুন।

বিঃদ্রঃ সালমান এফ রহমান বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা হলেও আমাদের কোনো সমস্যা সরকারের সাথে নয় এবং রাজনৈতিক উদ্যেশ্যেও নয় বরং ঈমানী দায়িত্বে আমরা প্রতিবাদ করছি তার ভূলেও কেউ সালমান + আওয়ামীলীগ মিক্সিং করে ইস্যুটাকে নষ্ট করে দেবেন না। বিশেষ করে জামায়াত শিবির এবং বিএনপির কর্মী সমর্থকদের বলছি।


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: