7.20.2017

সিলেটি ভাষা নিয়া Mr420.bd এর এডমিন Sadif Shoykot ব্যঙ্গাত্মক পোষ্ট এর জবাব

Mr420.bd এর এডমিন Sadif Shoykot এর পবিত্রভূমি সিলেট এর নিজস্ব ভাষাকে নিয়ে ব্যঙ্গ করার পরিপ্রেক্ষিতে একজন সিলেটি হিসেবে তার চরম প্রতীবাদ জানাচ্ছি!! (http://archive.is/IRbld)

এডমিন প্যনেলে কি মূর্খরা বসে আছে? সিলেটি ভাষা না শিখে, সিলেটি ভাষা সম্পর্কে না জেনে মূর্খের মতো মজা করার কারনে শাস্তি হওয়া প্রয়োজন বলে আমি মনে করি। আমরা কিভাবে বাংলা ভাষার ১২ টা বাজালাম? আপনা জানা উচিৎ ছিলো সিলেটিরা যে ভাষায় কথা বলে তা সম্পূর্ণ আলাদা একটা ভাষা যা বাংলার মতো হলেও আদতে বাংলা নয়। আমাদের নিজস্ব ভাষায়ই আমরা কথা বলি।

সময় করে নিচের লেখাটা পড়ে নিবেন ??

সিলেটিরা মূলত বাংলাভাষী নন। সিলেটি জনগোষ্ঠি নিজস্ব ভাষার অধিকারী। সিলেটি ভাষা বাংলা থেকে সম্পূর্ণ আলাদা এবং প্রাচীন একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ ভাষা। এ তথ্যটি অনেক সিলেটিরই অজানা। তাই সিলেটি ভাষা উপেক্ষিত। সিলেটি নিজস্ব লিপি নাগরী আজ প্রায় বিলুপ্ত।

পৃথিবীতে প্রায় ৮ হাজার ভাষা রয়েছে। এর মধ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ ভাষার সংখ্যা ৩ হাজার। এই ৩ হাজার ভাষার নিজস্ব বর্ণমালা আছে এবং যা মানুষের মুখে উচ্চারিত রয়েছে। বিশ্বের স্বয়ংসম্পূর্ণ ভাষাগুলোর একটি এই সিলেটি ভাষা। দেখুন উইকিতে (http://bit.ly/2foiLhj)। গবেষককেদের মতে, বাংলাদেশের মাতৃভাষা বাংলা হলেও সিলেটিদের মাতৃভাষা সিলেটি বা প্রচিন নাগরী। ফ্রান্সের বিখ্যাত ভাষা যাদুঘরে পৃথিবীর বিভিন্ন ভাষার উদৃতি রয়েছে। সেখানে বাংলাদেশের ভাষার বিবরণে উল্লেখ রয়েছে- বাংলাদেশে দুটি ভাষা প্রচলিত। এর একটি বাংলা এবং অন্যটি সিলেটি। সিলেটি ভাষার ইতিহাস ঘাটলে দেখা যায়, এ ভাষার প্রচলন শুধু সিলেটেই সীমাবদ্ধ নয়, ভারতের আসাম, ত্রিপুরা এবং মেঘালয়ের বহু সংখ্যক লোকের মাতৃভাষা সিলটী। এটি একটি প্রাচীন ভাষা তাতে কোন সন্দেহ নেই। সিলেটি ভাষা নিয়ে দেশ- বিদেশে চলছে গবেষণা। কিন্তু প্রাচীন এই ভাষাটি প্রাতিষ্ঠানিকভাবে রূপ পায়নি এখনো। পুরো বাংলায় অনেকটা উপেক্ষিত রয়েছে সিলেটি ভাষা। সিলেটি ভাষার উপর এ পর্যন্ত বেশ কজন পিইএচডি ডিগ্রী অর্জন করেছেন। এর মধ্যে বৃটিশ নাগরিকও আছেন। বর্তমানে আরো অনেকে বিশ্বের বিভিন্ন খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি নিচ্ছেন। বৃটেনে সিলেটি ভাষা শিক্ষার কয়েকটি ইন্সটিটিউট থাকলেও বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠানিকভাবে সিলেটি ভাষা শিক্ষার কোনো ক্ষেত্র নেই। যার ফলে সিলেটি ভাষা মানুষের মুখে থাকলেও এর বর্ণমালা (নাগরী লিপি) অনেকটা বিলুপ্ত হয়ে গেছে। হারিয়ে যাচ্ছে এর ইতিহাসও। ভাষা গবেষক সৈয়দ মোস্তফা কামাল ও অধ্যাপক মুহম্মদ আসাদ্দর আলীর মতে জটিল সংস্কৃত প্রধান বাংলা বর্ণমালার বিকল্প লিপি হিসেবে সিলটী নাগরীলিপির উদ্ভাবন হয়েছিল খ্রিষ্টীয় চতুর্দশ শতাব্দির মাঝামাঝি সময়ে। গবেষকদের ধারণা, ইসলাম প্রচারক সুফী দরবেশ এবং স্থানীয় অধিবাসীদের মনের ভাব বিনিময়ের সুবিধার জন্যে নাগরী লিপির উদ্ভাবন হয়েছিল। এই নাগরী বা সিলেটী ভাষা শুধু ভারত বা বাংলাদেশেই সীমাবদ্ধ নয়, ক্রমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিস্তৃতি লাভ করেছে। এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, সিলেট অঞ্চল এবং ভারত ছাড়াও বিশ্বের অন্যান্য দেশে এ ভাষা ব্যবহারকারীর সংখ্যা সাত লরে ও বেশী। শুধু গ্রেট বৃটেনেই সিলেটী ভাষা ব্যবহার কারীর সংখ্যা পাঁচ ল। বৃহত্তর সিলেটের বর্তমান জনসংখ্যা এক কোটি। লন্ডনের সিলেটী রিসার্চ এন্ড ট্রেন্সলেশন।

অন্যান্য আধুনিক ভাষার মত সিলেটী ভাষারও একটি নিজস্ব বর্ণলিপি রয়েছেইংরেজী ভাষায় যেমন ২৬টি বর্ণ রয়েছে, বাংলায় ৫০টি বর্ণ, ঠিক একইভাবে সিলেটী ভাষায় ৩২টি বর্ণ রয়েছেইংরেজী ভাষায় ভাওয়েল বা স্বরবর্ণ হলো ৫টি বাংলায় স্বরবর্ণ ১১টি (অ আ ই ঈ উ ঊ ঋ এ ঐ ও ঔ) সিলেটী ভাষায় স্বরবর্ণ ৫টি (অ ই ঈ উ ঊ)



বর্তমানে এক কোটি ষাট লক্ষ মানুষ সিলেটী ভাষায় কথা বলেসিলেটী ভাষা নিয়ে দেশ- বিদেশে অনেক গবেষণা চলছেসিলেটী ভাষার উপর এ পর্যন্ত বেশ কয়েকজন পিইএচডি ডিগ্রী অর্জন করেছেন যার মধ্যে আব্দুল মোছাব্বির ভূঁইয়া, মোহাম্মদ সাদিক, এস এম গোলাম কাদের প্রমুখএর মধ্যে বৃটিশ নাগরিকও আছেন যেমন জেমস লয়েডবর্তমানে আরো অনেকে বিশ্বের বিভিন্ন খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি নিচ্ছেনবিদেশের মাটিতে সিলেটী ভাষা শিক্ষার কয়েকটি ইন্সটিটিউট যেমন বৃটেনে সিলেট একাডেমী ইউকে এন্ড ইউরোপ, বার্র্মিংহ্যামে সিলেটী ভাষা শিক্ষা কেন্দ্র, কলকাতায় শ্রীহট্র সম্মিলিনী থাকলেও বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠানিকভাবে সিলেটী ভাষা শিক্ষার কোনো ক্ষেত্র নেইযার ফলে সিলেটী ভাষা মানুষের মুখে থাকলেও এর বর্ণমালা (নাগরী লিপি) অনেকটা বিলুপ্ত হয়ে গেছেহারিয়ে যাচ্ছে এর ইতিহাসও


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: