12.08.2017

ভারতে উগ্রপন্থী হিন্দুরা নিরীহ মুসলিম যুবককে পুড়িয়ে হত্যা করলেও মুসলমানদের চেতনাদন্ড খাড়া হচ্ছেনা


২ মিনিট ৪৮ সেকেন্ডের ভিডিওটি দেখে শেষ করতে পারিনি। এরকম বিভৎসতা দেখতে প্রচণ্ড মানসিক শক্তির প্রয়োজন হয়। 'রামদা' দিয়ে মোহম্মদ আফরাজুল খানকে ক্রমাগত কুপিয়ে যাচ্ছে গুজরাটি উগ্রপন্থী হিন্দু রাজপুত শম্ভুলাল। 

হত্যার পুরো দৃশ্যটি ভিডিও করেছে হত্যাকারীর ঘনিষ্ঠ কেউ, চমৎকার বিকৃত মানসিক সাহস এদের। ভিডিওটিতে মোহম্মদ আফরাজুল খান চিৎকার করে বলছেন,“বাবু ছোড় দো, জান বখশ দো, বাবু জান বখশ দো বাবু জান বখশ দো" খুনি উগ্রপন্থী হিন্দু শম্ভুলালের দয়ার উদ্রেক হয়নি। তার সুস্থ সবল শরীরে ততক্ষনে রামদায়ের আঘাত গোশত ভেদ করে হাড়ে চলে গেছে। আস্তে আস্তে তার প্রানবন্ত দেহ মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়লো। তারপর ঠান্ডা মাথায় শম্ভুলাল ব্যাগ থেকে পেট্রোলের বোতল এনে শহিদ আফরাজুলের শরীরে ঢেলে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দিল। পুড়ে মরলো একটি দেহ আর তার সাথে পুড়লো মানবতা। ক্যামেরার সামনে এরকম পরিকল্পিত ঠান্ডা মাথায় খুন কেবল আইএসআইএসের সাথে তুলনা করা যেতে পারে। খুনির বয়ান থেকে জানা যায় আফরাজুলের অপরাধ সে একজন হিন্দু মেয়েকে ভালবাসেছিল সেই মেয়েটির চরম ভালোবাসার আহব্বানে। হিন্দুত্ববাদীরা যার নাম দিয়েছে লাভ জিহাদ। এই নৃশংস হত্যাকান্ডটি ঘটেছে ভারতের গুজরাটে।





এই সেই ঘাতক উগ্রপন্থী হিন্দু সন্ত্রাসি খুনি
শুধু কি তাই? এই খুনের পর শম্ভুলালের দম্ভোক্তিঃ- লাভ জিহাদীও ইসি তারাহ আনজাম হোগা তুম লোগোকা, হর ভারতীয় তুমহে নেহী ছোড়েঙ্গে।

ভারতে এই মুসলিম হত্যার উৎসব শুরু হয়েছ আখলাককে হত্যার মধ্য দিয়ে। আখলাক তার রক্ত-গোশতের গন্ধ দিয়ে এক অদ্ভুত নেশা ধরিয়ে দিয়েছিলেন গেরুয়া হিন্দু উগ্রপন্থী সন্ত্রাসীদের। তাই শুধু একটা আখলাক এর নিথর দেহ হিন্দুত্ববাদের রক্তের স্রোতকে আটকাতে পারেনি। তার জন্য আখলাকের দেহের উপর থরে থরে সাজাতে হয়েছে পেহলু খান, জাফর, জুনাইদ এর লাশ। সর্বশেষ মোহাম্মদ আফরাজুল খান। ২ বছরে গুনে গুনে ২৯ লাশ! গোটা ভারত জুড়ে ক্রমেই বেড়ে চলেছে হিন্দুত্ববাদীদের মুসলিম হত্যার উৎসব। কেউ কি জানে এই নৃশংসতার শেষ কোথায়?


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুনঃ

এডমিন

আমার লিখা এবং প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বে আইনি।

0 facebook: